শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একটি লাগেজ থেকে বিপুল পরিমাণ সৌদি রিয়াল উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার রাতে এমিরেটস চেক ইন কাউন্টার সংলগ্ন প্যাসেঞ্জারস হোল্ড ব্যাগেজ স্ক্রিনিং রুমে পাওয়া একটি লাগেজে এসব রিয়াল পাওয়া যায়। এতে পাওয়া সৌদি রিয়ালের পরিমাণ ছিল ২২ লাখ ৯৯ হাজার ৫০০ রিয়াল। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৬ কোটি টাকা ।

কাস্টম হাউস ঢাকার প্রিভেন্টিভ সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাতে এমিরেটস এয়ারলাইন্স এর ফ্লাইটের (ইকে ৫৮৫) চেকিং চলাকালে প্যাসেঞ্জারস হোল্ড ব্যাগেজ স্ক্রিনিং রুমের স্ক্যানিং মেশিনে লাগেজটি স্ক্যান করা হলে মুদ্রা সদৃশ বস্তুর অস্তিত্ব পাওয়া যায়। লাগেজটির মালিককে খোঁজাখুঁজি করে না পাওয়ায় পরবর্তীতে এভিয়েশন সিকিউরিটি ও কাস্টমস গোয়েন্দা কর্মকর্তার সহায়তায় লাগেজটি কাস্টমস হলে এনে অন্যান্য সংস্থার উপস্থিতিতে খোলা হয়। লাগেজে থাকা ৩১টি শার্টের ভেতরের কাগজের বোর্ডের মধ্য মুদ্রা গুলো বিশেষ কায়দায় লুকায়িত অবস্থায় রাখা ছিল। 

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, যাত্রীকে খুঁজে না পাওয়ায় লাগেজের সঙ্গে থাকা ট্যাগ থেকে এমিরেটস কাউন্টার, ইমিগ্রেশন ও এভিয়েশন সিকিউরিটির সহায়তায় যাত্রীর বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়। যাত্রী এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ইকে ৫৮৫ ফ্লাইট যোগে দুবাই যাওয়ার জন্য চেক ইন কমপ্লিট করেন। কিন্তু তিনি ইমিগ্রেশন সম্পন্ন না করেই এয়ারপোর্ট ছেড়ে যান। এ বিষয়ে অধিকতর তদন্ত চলমান। 

উদ্ধার বৈদেশিক মুদ্রা ও লাগেজের ট্যাগের সঙ্গে থাকা তথ্যের ভিত্তিতে বর্ণিত যাত্রীর বিরুদ্ধে বিমান বন্দর থানায় ফৌজদারী মামলা করার প্রক্রিয়া চলমান বলে জানানো হয় প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আহমেদুর রেজা চৌধুরী জানান, শুল্ক গোয়েন্দা ও ঢাকা কাস্টমস হাউস যৌথভাবে ওই মুদ্রা আটক করেছে। 

তিনি বলেন, মুদ্রা পাচারের সঙ্গে জড়িত পলাতক থাকা ওই চক্রের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।