চট্টগ্রামে বাসা থেকে স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় সিটি করপোরেশনের (চসিক) কাউন্সিলর নুরুল আমিনের ছেলে নওশাদ আমিনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে শনিবার সকালে পাহাড়তলী থানার ১২নং সরাইপাড়া ওয়ার্ডের পদ্মা পুকুরের পশ্চিম পাড়ে কাউন্সিলর নুরুল আমিনের বাড়ি থেকে তার পুত্রবধূ রেহনুমা ফেরদৌস মিতুলের মরদেহ (২৫) উদ্ধার করা হয়।

রেহনুমা ৩১নং আলকরণ ওয়ার্ডের প্রয়াত কাউন্সিলর তারেক সোলেমান সেলিমের বড়ভাই যুবলীগ নেতা তারেক ইমতিয়াজের মেয়ে। এ ঘটনায় মেয়ের জমাই নওশাদ আমিন ও তার মা পলি বেগমকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন রেহনুমার বাবা ইমতিয়াজ।

পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কাউন্সিলরের পুত্রবধূর মৃত্যুর ঘটনায় রাতে স্বামী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে করা মামলায় নওশাদ আমিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পলাতক আছেন শাশুড়ি। তাকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

চার বছর আগে সরকার দলীয় কাউন্সিলর নুরুল আমিনের ছেলে নওশাদ আমিনের সঙ্গে বিয়ে হয় রেহনুমার। তাদের দুই বছর আটমাস বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। নওশাদ একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত।

>> চসিক কাউন্সিলরের পুত্রবধূর মরদেহ উদ্ধার, পরিবারের অভিযোগ হত্যা