রাজধানীর উত্তরার তুরাগে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের একটি গুদামে বিস্ফোরণ থেকে সৃষ্ট আগুনে দগ্ধ আটজনের মধ্যে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এ ঘটনায় ৪ জন নিহত হলেন।

আজ সোমবার ভোররাত পৌনে ১টার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিজানুর রহমান (৩৫) মারা যান।

ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক ডা. এসএম আইয়ুব হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মিজানের শরীরের ৯৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।’

এর আগে গত শনিবার রাতে ৩২ শতাংশ দগ্ধ নিয়ে মাজহারুল ইসলাম, ৭০ শতাংশ দগ্ধ নিয়ে আলম ও ৯৫ শতাংশ দগ্ধ নিয়ে নুর হোসেন মারা যান।

ডা. এসএম আইয়ুব হোসেন জানান, বর্তমানে আরও ৪ দগ্ধ রোগী ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে শাহিন ৩৫ শতাংশ, শফিকুল ৮০ শতাংশ, আল আমিন ৭০ শতাংশ ও মাসুম ৯৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছেন। তাদের সবার অবস্থা আশংকাজনক।

গত শনিবার দুপুরে কামারপাড়া এলাকায় গাজী মাজহারুল ইসলামের গুদামে ওই বিস্ফোরণ হয়। পুলিশ বলছে, গুদামটি লাগোয়া রিকশার একটি গ্যারেজ রয়েছে। গ্যারেজের রিকশা চালকদের নিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের জার সরানোর সময়ে বেলা পৌনে ১২টার দিকে বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। স্থানীয় লোকজন আগুন নেভাতে পারলেও সেখানে থাকা ৮ জনই দগ্ধ হন।

দগ্ধদের সঙ্গে হাসপাতালে আসা মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম দাবি করেন, রিকশা গ্যারেজের ভেতর পুরোনো ভাঙারি মালামাল ছিল। সেখানে স্ক্যাপ মেশিনে চাপ দিয়ে মালামাল এক করার সময়ে এর ভেতর থাকা স্প্রে বোতল ছিল। হঠাৎ ওই বোতলগুলো থেকে বিস্ফোরণ হয়ে আগুন ধরে যায়।