তৃতীয় লিঙ্গের দুই শতাধিক মানুষকে সঙ্গে নিয়ে স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা পাথওয়ে। আজ সোমবার রাজধানীর মিরপুরে পাথওয়ের প্রধান কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। পরে আলোচনা সভা ও কোমলমতি শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ছাড়াও গণভোজ এবং তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলনসহ নানা কর্মসূচি পালন করে পাথওয়ে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত তৃতীয় লিঙ্গের কান্তা বলেন, জাতির পিতা বেঁচে থাকলে সমাজে এতো অবহেলিত হয়ে থাকতে হতো না। সমাজের মূলস্রোতে নিয়ে দেশের উন্নয়নে আমাদেরকেও কাজ করার সুযোগ করে দিতেন তিনি। এই দিনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ, তিনি যেন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের কর্মসংস্থানের উদ্যোগ নেন।

আলোচনা সভায় পাথওয়ের নির্বাহী পরিচালক মো. শাহিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর  স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে হলে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে সমাজের মূলস্রোতে সংযুক্ত করার কথা বলেন। এ সময় তিনি অবহেলিত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের প্রতি পরিবার, সমাজ ও নিকটাত্মীয়দের ভালো ব্যবহার, নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি বাদ দিয়ে তাদের প্রতি সৌহাদ্যপূর্ণ আচরণের পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বাসস্থান এবং অন্যান্য মৌলিক অধিকার পূরণে নজর দেওয়ার কথা বলেন। তাদের বিভিন্ন কারিগরি প্রশিক্ষণ দেওয়ার মাধ্যমে প্রশিক্ষিত করে কর্মক্ষেত্রে সুযোগ তৈরি করে রাষ্ট্রের সকল উন্নয়নমূলক কাজে লাগানোর আহবান জানান।

তিনি বলেন, দেশ আমার আপনার সবার। তাই এই দায়িত্ব কারও একার নয় বরং সকলের। দেশে যেসব আর্থিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠান তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মাঝে ক্ষুদ্রঋণ দেওয়ার মাধ্যমে তাদের আর্থিক সহযোগিতা ও ব্যবসার সুযোগ করে দিতে পারে। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা পাথওয়ে ইতিমধ্যে হিজড়াদের বেকারত্ব দূরীকরণ এবং তাদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করতে ক্ষুদ্রঋণ প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে।

অনুষ্ঠানে আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম জাহিদ, সমাজসেবা অফিসার (অঞ্চল-৬) কে এম শহিদুজ্জামান, পাথওয়ের চেয়ারম্যান রইজুর রহমান ও উপদেষ্টা সাদ্দাম হোসেন ফয়েজসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।