বৈশ্বিক জলবায়ু ধর্মঘট ২০২২ পালন করেছে বাংলাদেশের কয়েকশ’ তরুণ-তরুণী। অ্যাকশনএইড বাংলাদেশ শুক্রবার রাজধানী ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে, ফ্রাইডেস ফর ফিউচারসহ ৭২টি দেশের তরুণদের বিভিন্ন সংগঠনের সহযোগিতায় এই জলবায়ু ধর্মঘটের আয়োজন করে।

ধর্মঘটকারীরা এক বিবৃতিতে জলবায়ু ন্যায়বিচারের সমর্থনে অতি দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য সব দেশের প্রতি আহ্বান জানান। তারা বাংলাদেশ সরকারকে একটি ‘জলবায়ু জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করতে এবং বিশ্বনেতাদের অবশ্যই মুনাফার চেয়ে মানুষকে' অগ্রাধিকার দেওয়ার আহ্বান জানান।

'পরিবেশ নয়, আচরণ পাল্টান', 'আমার পৃথিবী, আমার দায়িত্ব', 'আমাদের ভবিষ্যৎ আমাদের হাতে', জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার বন্ধ করুন', 'পরিবেশের উষ্ণতা বাড়িয়ে ভবিষ্যত ধ্বংস করো না', 'জীবাশ্ম জ্বালানী, পুড়ছে ধরণী', 'জলবায়ু ন্যায্যতা- এখন নয়তো কখন?', 'পরিবেশ বাঁচলে মানুষ বাঁচবে', জলবায়ু ন্যায্যতায় তরুণ প্রজন্ম', ভালোবাসা ছড়াও, নির্গমন নয়'- এমন নানা স্লোগান এবং চিন্তা-উদ্দীপক প্ল্যাকার্ড এবং পোস্টারের মাধ্যমে জলবায়ু ন্যাযতার দাবি জানান তরুণ জলবায়ু কর্মীরা।
জলবায়ু সুরক্ষায় আগামী নভেম্বরে মিশরের শার্ম-এল-শেখ-এ অনুষ্ঠিতব্য কপ ২৭ সম্মেলনে তরুণ প্রজন্মের কন্ঠস্বর তুলে ধরা এবং তাদের দাবীসমূহ বিবেচনায় রাখার আহ্বান জানান অংশগ্রহণকারীরা। এই ধর্মঘটের মাধ্যমে বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা তরুণ প্রজন্ম আগামী কপ ২৭ সম্মেলনে বৈশ্বিক নেতৃত্বের কাছে জলবায়ু সুরক্ষার বার্তা পৌঁছে দেয়ার একটি অনন্য সুযোগ মনে করেন।