জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে দলের কর্মপরিকল্পনা ঠিক করার আগে জেলা ও মহানগর নেতাদের মতামত নিতে ধারাবাহিক বৈঠক করছে বিএনপি। আগামী ৪ অক্টোবর পর্যন্ত এ মতবিনিময় সভা হবে। শনিবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগের জেলা ও মহানগরের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা হয়। এতে আগামী ১০ ডিসেম্বরে ঢাকায় মহাসমাবেশের পর লংমার্চ কর্মসূচির প্রস্তাব দেন নেতারা। পাশাপাশি নির্বাচনকালনীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া আগামীতে কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা যাবে না বলেও মতামত তুলে ধরেন। এ সময় সব দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে আগামী দিনের আন্দোলন সফল করার নির্দেশ দেয় দলের হাইকমান্ড। আজ ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের জেলা ও মহানগরের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে সভা হবে।

চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে পৌনে ৪ ঘণ্টাব্যাপী ওই সভা হয়। এতে লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এ ছাড়া মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও উপস্থিত ছিলেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দুই বিভাগের সাংগঠনিক ও সহসাংগঠনিক সম্পাদকের পাশাপাশি জেলা ও মহানগরের দুই শীর্ষ নেতা উপস্থিত ছিলেন। সভায় সাংগঠনিক বিভাগে সদ্য ঘোষিত সমাবেশে সর্বোচ্চসংখ্যক নেতাকর্মীর উপস্থিতি চায় বিএনপি হাইকমান্ড। এ জন্য নানা দিকনির্দেশনা দেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। একই সঙ্গে জেলা ও মহানগরে কোনো কোন্দল থাকলে তা সমাধানের ওপর জোর দেয় হাইকমান্ড। সমাবেশে সব পর্যায়ের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধভাবে অংশ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

সভায় উপস্থিত চট্টগ্রাম বিভাগের এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, আগামী দিনের আন্দোলন নিয়ে জেলা ও মহানগর নেতাদের কাছে পরামর্শ চান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। তারা নানা পরামর্শ দেন। পাশাপাশি আন্দোলন সফল করতে দিকনির্দেশনা দিয়েছে হাইকমান্ড। এ ছাড়া দ্রুত সময়ের মধ্যে তৃণমূল পর্যায়ের পুনর্গঠন শেষ করার নির্দেশ দেয় হাইকমান্ড।

বিএনপির এক নীতিনির্ধারক জানান, আগামী দিনের আন্দোলন-কর্মসূচি ও রাজনৈতিক কৌশল নির্ধারণের আগে তৃণমূলের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। তৃণমূলের পরামর্শেই নতুন কর্মসূচি সাজাতে চায় হাইকমান্ড। আগামী দিনের আন্দোলন-সংগ্রামে কেমন ভূমিকা থাকবে, তা নিয়ে নেতাদের পরামর্শ নিচ্ছেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

গত বুধবার ১০ সাংগঠনিক বিভাগে সমাবেশের ঘোষণা দেয় বিএনপি। আগামী ৮ অক্টোবর থেকে এই সমাবেশ শুরু হবে। সেদিন চট্টগ্রামে, ১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহে, ২২ অক্টোবর খুলনায়, ২৯ অক্টোবর রংপুরে, ৫ নভেম্বর বরিশালে, ১২ নভেম্বর ফরিদপুরে, ১৯ নভেম্বর সিলেটে, ২৬ নভেম্বর কুমিল্লায়, ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে এবং সবশেষে ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় হবে মহাসমাবেশ। এ ছাড়া সম্প্র্রতি নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত আবদুর রহিম, নূরে আলম, শাওন ও আবদুল আলিমের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য আগামী ৬ অক্টোবর দেশের সব মহানগরে এবং ১০ অক্টোবর সব জেলায় শোক র‌্যালি করবে দলটি।