নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে দ্বিতীয় দফায় সংলাপ শুরু করেছে বিএনপি। এর প্রথম দিনই ২০ দলীয় জোটের শরীক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির সংঙ্গে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় দফা সংলাপ কেনো ব্যাখ্যা করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, প্রথম দফা সংলাপে যুগপৎ আন্দোলনে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে তারা নীতিগতভাবে একমত হয়েছিলেন। দ্বিতীয় দফা সংলাপে তারা কোন কোন দাবিতে বা কোন কোন ইস্যুতে আন্দোলনটা করবেন সেই বিষয়ে ঐক্যমতে এসেছেন। দ্বিতীয় দফায় আওয়ামী লীগ ছাড়া সকল রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ হবে।

রোববার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংলাপ শেষে মির্জা ফখরুল বলেন, এই আলোচনায় আমরা এই সিদ্ধান্তে উপনীতি হয়েছি যে, বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার লক্ষ্যে যে কয়েকটি প্রধান বিষয় নিয়ে আন্দোলন শুরু করবো অর্থাৎ যে দাবিগুলো নিয়ে আন্দোলন শুরু করবো সেই দাবিগুলোর বিষয়ে একমত হয়েছি।

এর মধ্যে নির্বাচনকালীন সময়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠনের ব্যাপারে একমত হয়েছি, এই সরকারের পদত্যাগের ব্যাপারে একমত হয়েছি, সংসদ বিলুপ্ত করার ব্যাপারে একমত হয়েছি। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে তার মাধ্যমে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে একমত হয়েছি। একইসঙ্গে খালেদা জিয়াসহ সকল নেতাকর্মীর মুক্তি এবং যাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে সেই মামলা প্রত্যাহারের বিষয়েও একমত হয়েছি।

কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, তাদের সকল সদস্য এই আলোচনা অংশ নিয়ে জানতে চেয়েছেন, যুগপৎ আন্দোলন কবে? তবে এ বিষয়ে একমত হয়েছি তারিখটা প্রকাশ না করার জন্যে।

তিনি বলেন, তিনি একজন রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের যে সংগ্রাম সেটা আরেকটি মুক্তিযুদ্ধ। সেখানে মুক্তিযোদ্ধা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম খান, মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমসহ তাদেরকে যারা ভালোবাসেন তারা সবাই মিলে এই যুদ্ধে লড়বেন এবং জয়ী হবেন। এখানে জয় ব্যতীত অন্য কোনো বিকল্প নাই।

সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হলেন, মহাসচিব আবদুল আউয়াল মামুন, কেন্দ্রীয় নেতা নুরুল কবির পিন্টু, আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকিব, রাশেদ ফেরদৌস সোহেল মোল্লা, মাহবুবুর রহমান শামীম, জামাল হোসেন, আবু হানিফ, আবু ইউসুফ।

বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়কারী নজরুল ইসলাম খান উপস্থিত ছিলেন।