শিগগিরই বিমানের ঢাকা-ইম্ফাল ফ্লাইট চালু হবে বলে জানিয়েছেন বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। তিনি বলেন, ফ্লাইট চালু হলে ভারতের মণিপুর রাজ্যের সঙ্গে পর্যটনসহ নানান অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক আরও জোরদার হবে। 

আজ শুক্রবার বিকেলে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ইন্টারন্যাশনাল মণিপুরী অ্যাসোসিয়েশনের (ইমা) জাতীয় কনভেনশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কনভেনশনে ভারতের মণিপুর, ত্রিপুরা রাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে মহান মুক্তিযুদ্ধে মণিপুরীরা সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছেন। ১৯৭৩ সালে মণিপুরীদের এক প্রতিনিধিদল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে সঙ্গে দেখা করেন। বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত মণিপুরীদের মন্দির-স্থাপনা মেরামতের জন্য আর্থিক অনুদান দেন। এ ধারাবাহিকতা আজও বিদ্যমান। মণিপুরী জীবনমান, সংস্কৃতি উন্নয়নে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার কাজ করে চলেছেন। 

ইমা বাংলাদেশের সভাপতি ওইনাম রমেন্দ্র কুমার সিংহের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, ইমা সেন্ট্রাল কমিটির উপদেষ্টা ডা. প্রমোদ রঞ্জন সিংহ, উপদেষ্টা ডা. গুরুময়ুম অরুণ কুমার শর্মা, সেন্ট্রাল কমিটির চেয়ারম্যান এস অনিল চন্দ্র সিংহ ও সেক্রেটারি জেনারেল এল আশাপূর্ণা দেবী। স্বাগত বক্তব্য দেন ব্রক্ষচারিময়ুম সুপ্রিয়া দেবী। এর আগে সকালে কনভেনশন উদ্বোধন করেন সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এ পর্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, ইমা সেন্ট্রাল কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান নিরঞ্জন দত্ত, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হিজম দ্বিজেন সিংহ।

নিহার রঞ্জন শর্মার পরিচালনায় প্যানেল আলোচনায় অংশ নেন ইমা সেন্ট্রাল কমিটির ইসি মেম্বার ব্রক্ষচারিময়ুম সুপ্রিয়া দেবী, ভাইসপ্রেসিডেন্ট আবুজম মনিভদ্র, সেন্ট্রাল ইসি মেম্বার এল কুঞ্জরাণী দেবী, নির্মলেন্দু শর্মা, জী নিরোদ শর্মা ও ডা. প্রমি সিনহা। 

কনভেনশনে নৃত্য পরিবেশন করেন অনিমা দেবী, আর কে গীতাঞ্জলি। এদিকে, শনিবার কনভেনশনের দ্বিতীয় দিন নগরীর লামাবাজার মনিপুরী মণ্ডপে মণিপুরীদের ঐতিহ্যবাহী ‘খুবাক ঈশৈ’ পরিবেশন করবেন শিল্পী অনিমা দেবী। রোববার কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে কমলগঞ্জ উপজেলায় চিৎলিয়া মণিপুরী মণ্ডপে।