তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ৫০ বছর আগে দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্তির অধিকার উপলব্ধি করেছিলেন। তাই তিনি স্বাস্থ্যসহ পাঁচটি মৌলিক অধিকার প্রাপ্তির অধিকারকে সংবিধানে সংযোজন করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার জনগণের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করে বাংলাদেশকে মানবিক রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।

প্রতিমন্ত্রী শুক্রবার সকালে সিংড়া গোল-ই-আফরোজ সরকারি কলেজ মাঠে আল বাশার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে বিনামূল্যে চক্ষু ক্যাম্পের উদ্বোধনকালে একথা বলেন।

পলক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হৃদয়জুড়ে ছিলো দেশের মানুষের কল্যাণ চিন্তা। বঙ্গবন্ধু নিজের দূরদর্শীতা দিয়ে জনগণের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা এবং চিকিৎসা প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করেন। এ সব অধিকার প্রাপ্তির সুযোগ তৈরি করে জনগণের সমৃদ্ধি আর সুন্দর জীবনযাপন নিশ্চিত করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা পিতার নীতি অনুসরণ করে দেশে প্রযুক্তি ও বিশেষায়ন সুবিধার মাধ্যমে দেশের মানুষের স্বাস্থ্য সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছেন। প্রযুক্তি সুবিধার মাধ্যমে তিনি এই সেবাকে মানুষের দোরগোড়ায়  নিয়ে গিয়েছেন। এখন মানুষ টেলিমেডিসিন সুবিধা গ্রহণ করে খুব সহজেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারছেন। আমরা সময়ে সময়ে মেডিকেল ক্যাম্প আয়োজন করে মানুষের কাছাকাছি চিকিৎসা সেবাকে নিয়ে গেছি।

তিনি বলেন, অবকাঠামো উন্নয়ন, চিকিৎসক নিয়োগ, সহায়ক উপকরণ প্রদানের মাধ্যমে দেশের হাসপাতালগুলোতে উন্নত চিকিৎসা প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছে সরকার। সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিগত ২০ বছরে একটি অ্যাম্বুলেন্স না থাকলেও বিগত ১৩ বছরে এই হাসপাতালে অত্যাধুনিক তিনটি অ্যাম্বুলেন্স প্রদান করা হয়েছে। এখন আর কনোন মানুষ স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্তিতে বঞ্চিত হয় না।

এর পর আল বাশার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. আহমেদ তাহির হামিদ এবং সদস্য ড. সালমান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দ্বিতীয় সচিব মো. গোলাম কিবরিয়া বক্তব্য রাখেন।

সিংড়া ডায়াবেটিক সমিতি ও মক্কা হাসপাতালের সহযোগিতায় আল বাশার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে চক্ষু ক্যাম্পে প্রায় চার হাজার রোগী নিবন্ধিত হয়ে চিকিৎসাসেবা গ্রহণ করেন।