সাইন্সল্যাব বঙ্গবন্ধু পরিষদের নবগঠিত কমিটির নেতারা বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার কুশীলব ছিলেন জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধুর হত্যায় পরিকল্পনা ও ষড়যন্ত্রকারীদের বিচার আজও হয়নি। ইতিহাসের কাঠগড়ায় আমাদের দাঁড়াতে হবে এ বিচার না হলে। শেখ হাসিনার আমলে বিচার না হলে সে বিচার আর কোনোদিন হবে না। স্বাধীনতাবিরোধীদের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনা হয়। 

সাইন্সল্যাব বঙ্গবন্ধু পরিষদের নবগঠিত কমিটির নেতারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এসব কথা বলেন। এ সময় জাতির পিতার পরিবার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করা হয়। 

সোমবার বিকাল ৪টায় সংগঠনটির সভাপতি ড. মালা খান এবং সাধারণ সম্পাদক ড. স্বপন রায়ের নেতৃত্বে জাতির পিতার ঐতিহাসিক বাসভবন ধানমন্ডি-৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন তারা।

বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যায় জড়িতদের হাইকমিশনে চাকরি দেওয়া হয়। খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর খুনিদের প্রত্যেকটা পদক্ষেপে সহায়তা করেছেন। যারাই ক্ষমতার অপব্যবহার করেছে তারা আঁস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। 

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, ২১ বার হত্যার মুখোমুখী হয়েও দেশরত্ন শেখ হাসিনা আজও দেশের মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তার হাতকে শক্তিশালী করতে সাইন্সল্যাব বঙ্গবন্ধু পরিষদের প্রতিটি নেতৃবৃন্দকে কাজ করে যেতে হবে। 

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ আলাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সরদার মাহামুদ হাসান রুবেল। আরও উপস্থিত ছিলেন এস এম ওয়াদুজ্জামান মিন্টু, নির্মল বিশ্বাস, মনিরুল ইসলাম খান, খালিদ হাসান নয়ন প্রমুখ। সাইন্সল্যাব বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন মাহমুদুল হাসান রাজু ও মো. মশিউর রহমান। 

উল্লেখ্য, গত রোববার ৬ নভেম্বর ২০২২ সায়েন্স ল্যাবরেটরির বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) হলরুমে সম্মেলনের মাধ্যমে সাইন্সল্যাব বঙ্গবন্ধু পরিষদের পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়।