পুলিশের মহাপরিদর্শককে (আইজিপি) চিঠি দিয়ে রাজনৈতিক নিপীড়নমূলক বেআইনি, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত চিঠি নিয়ে ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলুর নেতৃত্বে কয়েকজন নেতা আজ বৃহস্পতিবার আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুনের সঙ্গে দেখা করেন।

একটি পত্রিকার প্রতিবেদন তুলে ধরে বিএনপির চিঠিতে বলা হয়, গত আগস্ট থেকে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত ১৬৯টি গায়েবি ও মিথ্যা মামলা হয়েছে বলে জানায় বিএনপি। সেখানে নাম ধরে আসামি করা হয়েছে ছয় হাজার ৭২৩ জনকে। বেনামে আসামি করা হয়েছে ১৫ হাজার ৫০ জনকে।

বিএনপির চিঠিতে বলা হয়, ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিস্তারিত তথ্যসহ তালিকা প্রস্তুত করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। সম্প্রতি পুলিশ কর্তৃক রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মিথ্যা মামলা দায়ের এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন চরমতম পর্যায়ে পৌঁছেছে।

কয়েকটি পত্রিকায় গায়েবি মামলাসংক্রান্ত প্রতিবেদন তুলে ধরে বলা হয়, ‘এসব খবরের মূল প্রতিপাদ্য হলো, চলতি মাসেই পুলিশ বাহিনী যে গায়েবি মামলা করেছে, সেসব মামলার সব আসামি বিএনপির নেতা-কর্মী, একই ঘটনায় দুই থানায় পৃথক মামলা হয়েছে, বাদী নিজেই জানেন না আসামির সংখ্যা কত, সাক্ষীও বিস্ফোরণ শুনেননি এবং ঘটনাস্থলের বাসিন্দারা কিছুই জানেন না। মামলার বাদী পুলিশ কিংবা আওয়ামী লীগ বা এর অঙ্গসংগঠনের নেতা–কর্মী এবং অধিকাংশ মামলার অভিযোগ হুবহু এক।’

আইজিপির কাছে চিঠি দিতে বরকত উল্লাহ বুলুর সঙ্গে ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি ও বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক কায়সার কামাল।

বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, ‘আমরা আইজিপি মহোদয়ের কাছে কথাগুলো বলেছি। উনি আমাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন। বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় আমাদের নেতা-কর্মীদের যেভাবে হয়রানি করছে, গ্রেপ্তার করছে, সে বিষয় তুলে ধরেছি। বিভিন্ন জায়গায় আওয়ামী লীগের লোকজন বোমা ফাটিয়ে মিথ্যা মামলা দিচ্ছে।’