কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, দেশের জনগণের জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে সরকার যথেষ্ট অগ্রগতি সাধন করেছে। তবে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে দেশের খাদ্য ব্যবস্থা ব্যাহত হওয়ার ঝুঁকি থাকে, যা খাদ্য নিয়ে বৈষম্য সৃষ্টিসহ খাদ্যের সহজলভ্যতা সংকটের মুখে ফেলতে পারে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত উন্নত পুষ্টি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনাবিষয়ক এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এটি ছিল মাল্টি-স্টেকহোল্ডার অ্যাডভোকেসি প্ল্যাটফর্ম সাউথ এশিয়ান পলিসি লিডারশিপ ফর ইমপ্রুভড নিউট্রিশন অ্যান্ড গ্রোথের (স্যাপলিং) আঞ্চলিক অধিবেশনের প্রথম পর্ব।

ভারতীয় উন্নয়ন সংস্থা আইপিই গ্লোবালের সহযোগিতায় এ সভার আয়োজন করে ব্র্যাক। অধিবেশনে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কার বিভিন্ন খাতের প্রতিনিধি প্যানেল আলোচনায় অংশ নেয়।

স্যাপলিং প্রসঙ্গে সভায় মতিয়া চৌধুরী বলেন, জ্ঞান বিনিময়, খাদ্যের মানোন্নয়ন এবং খাদ্য নিরাপত্তায় উৎপাদনশীল ভবিষ্যৎ নিশ্চিতে এ প্ল্যাটফর্ম ভূমিকা রাখবে।

সভায় পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যের সহজলভ্যতা এবং প্রাপ্যতা নিশ্চিতে বহুদেশীয় প্রাতিষ্ঠানিক সহযোগিতা দরকার।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার সিদ্ধার্থ চতুর্বেদী, ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র কৃষি অর্থনীতিবিদ আমাদো বা প্রমুখ।