ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

রাজধানীর ৩০ স্থানে কম দামে বিক্রি হচ্ছে দুধ ডিম মাংস

রাজধানীর ৩০ স্থানে কম দামে বিক্রি হচ্ছে দুধ ডিম মাংস

রমজান উপলক্ষে সরকারি উদ্যোগে বিক্রি করা হচ্ছে সুলভ মূল্যে দুধ, ডিম ও মাংস। রোববার রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকায় সমকাল

 সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১১ মার্চ ২০২৪ | ০০:৩৮

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা সায়মা সুলতানা। চাকরি করেন ফার্মগেটে বেসরকারি হাসপাতালে। দুই সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে তাঁর সংসার। দু’জনের উপার্জনে টেনেটুনে চলে পরিবার। গতকাল রোববার প্রতিদিনের মতো দায়িত্ব পালন শেষে বাসায় ফিরছিলেন সায়মা। পথে খামারবাড়ির সামনে দেখতে পান ভ্রাম্যমাণ গাড়িতে স্বল্পমূল্যে দুধ, ডিম, মাংস বিক্রি হচ্ছে। কিছু সাশ্রয়ের আশায় লাইনে দাঁড়ান তিনি। কিনে নেন এক কেজি করে গরুর মাংস, মুরগি, দুধ এবং এক ডজন ডিম। 

সরকারি এই বিক্রয় কেন্দ্রে তরল দুধ প্রতি লিটার ৮০ টাকা, গরুর মাংসের কেজি ৬০০ টাকা, খাসির মাংস ৯০০, ড্রেসড ব্রয়লার ২৫০ টাকা এবং ডিম এক ডজন ১১০ টাকা। অন্যদিকে বাজারে তরল দুধ প্রতি লিটার ৯০ টাকা, গরুর মাংস প্রতি কেজি ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা, খাসির মাংস ১১০০ থেকে ১২০০ টাকা, ড্রেসড ব্রয়লার প্রতি কেজি ৩০০ টাকা এবং ডিম প্রতিডজন ১৪০ টাকা। সবগুলো কিনতে বাজারে একজন ক্রেতাকে ব্যয় করতে হবে ২ হাজার ৫৩০ টাকা। ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কেন্দ্রে মিলছে ১ হাজার ৯৪০ টাকায়।
সায়মা সুলতানা বলেন, ‘সীমিত আয় দিয়ে বাজার থেকে ভালো কিছু কিনে খাওয়া সম্ভব নয়। এখান থেকেই এখন নিয়িমতি কিনব।’ 
পবিত্র রমজান উপলক্ষে রাজধানীতে ৩০টি স্থানে সুলভ মূল্যে দুধ, ডিম ও মাংসের ভ্রাম্যমাণ বিক্রি কার্যক্রম পরিচালনা করছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। গতকাল খামারবাড়িতে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর চত্বরে মাসজুড়ে এসব পণ্য বিক্রির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী মো. আব্দুর রহমান। এ সময় তিনি বলেন, প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য সহনীয় রাখতে এই পদক্ষেপ। প্রতিদিন আড়াই টন পণ্য বিক্রি করা হবে। 

বাড্ডার নতুনবাজার, বনানীর কড়াইল বস্তি, ফার্মগেটের খামারবাড়ি, আজিমপুর মাতৃসদন, গাবতলী, উত্তরার দিয়াবাড়ী, মোহাম্মদপুরে  জাপান গার্ডেন সিটি, মিরপুর ৬০ ফুট রোড, খিলগাঁও (রেল ক্রসিংয়ের দক্ষিণে), সচিবালয়ের পাশে (আব্দুল গনি রোড), সেগুন বাগিচা (কাঁচাবাজার), আরামবাগ, রামপুরা, মিরপুরের কালশী, যাত্রাবাড়ী (মানিকনগর গলির মুখে), মোহাম্মদপুরের বছিলা, হাজারীবাগ (সেকশন), লুকাস (নাখালপাড়া), আরামবাগ, কামরাঙ্গীরচর, মিরপুর ১০, কল্যাণপুর (ঝিলপাড়া), তেজগাঁও, পুরান ঢাকার বঙ্গবাজার ও কাকরাইলে ভ্রাম্যমাণ গাড়িতে পণ্য বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া মিরপুর শাহ আলী বাজার, মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট, নতুন বাজার (১০০ ফুট), কমলাপুর, কাজী আলাউদ্দিন রোডে বাজারে স্থায়ী দোকানে পণ্য বিক্রি হবে। প্রতিদিন সকাল ৯টার মধ্যে ফ্রিজিং পিকআপ পৌঁছে যাবে বিক্রয় কেন্দ্রগুলোতে। সকাল ১০টায় শুরু হয়ে পিকআপের পণ্য শেষ না হওয়া পর্যন্ত 
বিক্রি চলবে।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. রেয়াজুল হক বলেন, দুধ, ডিম ও মাংস খামারিদের কাছ থেকে কেনা হয়েছে। অন্য খামারিরা ইচ্ছা করলে কম দামে বিক্রি করতে পারেন। তাতে দামও কিছুটা কম থাকবে। তিনি বলেন, প্রতিটি প্রাণী পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে স্বাস্থ্যসম্মত কসাইখানায় জবাই 
করে প্যাকেট করা হচ্ছে। সব পণ্যের মান বেশ উন্নত। 

আরও পড়ুন

×