শিক্ষায় বর্তমান সংকট থেকে উত্তরণে করণীয় প্রসঙ্গে দেশ-বিদেশে বিশিষ্টজন বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে বক্তব্য দিচ্ছেন। তবে ক্ষতির বিষয়টিকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখাটা ঐতিহাসিক ভুল হবে। ক্ষতির চেয়ে অর্জন যেন বেশি হয় সেদিকে মনোযোগ দিতে হবে।
গত বছর মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার পর শিক্ষাক্ষেত্রে যে সংকট তৈরি হয়েছে তা সামাল দিতে আমাদের শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে আর তা কতটা কাজে এসেছে তার একটা নিরাসক্ত মূল্যায়ন হওয়া দরকার। বলতে দ্বিধা নেই, তাদের গৃহীত উদ্যোগে আন্তরিকতা সত্ত্বেও যে কাজটি করা হয়নি তা হলো শিক্ষার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে সংশ্নিষ্ট শিক্ষার্থী, তাদের বাবা-মা, শিক্ষক এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপকদের মতামত নেওয়া হয়নি। অবিলম্বে তাদের মতামত নেওয়া দরকার। কবে কখন কীভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যাবে তা নিয়ে এখন আমরা আলোচনা করছি। আলোচনার দরকার আছে। তবে যাদের জন্য শিক্ষা, যাদের সন্তানদের শিক্ষা, যারা সে শিক্ষা দেন, শিক্ষা দানে যারা ব্যবস্থাপনা করেন তাদের মতামত সবচেয়ে গুরুত্বপূূর্ণ।
আমি প্রস্তাব রাখতে চাই, তাদের মতামত সংগ্রহ করে সংকট উত্তরণে একটি কমিটি গঠন করা দরকার। তাদের মতামত নেওয়ার প্রশ্নমালা তৈরি করা দরকার এবং সে মতামত একটি কাঠামোর মধ্যে মূল্যায়ন করা দরকার।
আজকে বিভিন্ন দেশে যারা শিক্ষা নিয়ে কাজ করেন তারা একদিকে যেমন ক্ষতি পরিমাপ করছেন আবার নতুন পরিপ্রেক্ষিতে কীভাবে তা সামাল দেওয়া যায়, করোনাকালে শিক্ষা ক্ষেত্রে নতুন কী কী সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে তার মূল্যায়নও করছেন। ছেলেমেয়েরা এখন বাইরে যেতে পারছে না। স্বাস্থ্য সুরক্ষার দিকটি নিশ্চিত করে বিশেষ ক্ষেত্রে বিশেষ শিক্ষক গৃহে পাঠদান করতে পারেন কিনা সে প্রশ্নটাও উঠছে।
আমাদের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষকদের টিম গঠন করে বাড়িতে বাড়িতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে। বিষয়টি বিবেচনাযোগ্য। সেসঙ্গে শিক্ষকদের একটি ভ্রাম্যমাণ আঞ্চলিক টিম গঠন করার বিষয়টিও বিবেচনা করা যেতে পারে। যোগ্যতার শর্ত পূরণ সত্ত্বেও বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, অনার্স কলেজ বা বিভিন্ন কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মাদ্রাসার অনেক শিক্ষক এমপিওভুক্ত হতে পারছেন না। এমপিও বঞ্চিতদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ দিয়েছেন। শিক্ষকদের জন্য তার এই সহৃদয় অনুভূতি প্রশংসার দাবি রাখে।
লেখক : জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন কমিটির সাবেক সদস্য



বিষয় : শিক্ষায় বর্তমান সংকট

মন্তব্য করুন