জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষা বর্ষের শিক্ষার্থী আকবর হোসাইনের রহস্যজনক মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেছে জবি শিক্ষার্থীরা। 

দোষীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছে জবি শিক্ষার্থীরা। 

স্মারকলিপিতে বলা হয়, গত ২৭আগষ্ট ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী জনাব আকবর হোসাইন পুরান ঢাকার মেস থেকে বেরিয়ে যায় এবং তার সহপাঠীরা ফোনে যোগাযোগ করলে আশেপাশে অবস্থান করছে বলে জানায়। সর্বশেষ রাতে যখন তার সাথে যোগাযোগ করা হয় তখন সে একটু পর বাসায় ফিরবে বলে তার বড় বোনকে জানায়। 

অতঃপর রাত ৮টা ৫৩ মিনিটের দিকে জানা যায় সে চট্টগ্রামের একটি ফ্লাইওভার থেকে নিচে পড়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা ঘটনাস্থল থেকে অজ্ঞান ও আহত অবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। 

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, চিকিৎসায় দায়িত্বরত ডাক্তার ও পুলিশের তদন্ত ও প্রাপ্ত আলামতের ভিত্তিতে এটি স্পষ্টত হয় যে, এটি কোনো আত্মহত্যা কিংবা দুর্ঘটনার কেইস নয়। কারণ তাকে অজ্ঞান ও আহত অবস্থায় ফ্লাইওভার থেকে ফেলে দেওয়া হয়েছে। 

ইতোমধ্যে আকবরের পরিবার চট্টগ্রামের খুলশী থানায় একটি মামলাও করেছেন। 

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, ঘটনার দিন ও (আকবর) হোয়াটস অ্যাপ এবং ইন্সট্রাগ্রাম ব্যবহার করে কথা বলেছে। কিন্তু সেগুলো ফোন থেকে ডিলিট করা হয়েছে। চট্টগ্রাম খুলশি থানা পুলিশ সেগুলো উদঘাটন করার জন্য ঢাকায় ডিবিতে পাঠিয়েছে। শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।