করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ধারণার আগে থেকেই ইউরোপে ছিল। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্য দেশ নেদারল্যান্ডসে ১৯ থেকে ২৩ নভেম্বরের মধ্যে নেওয়া দুটি নমুনা পরীক্ষা করে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। 

সেই হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়ার আগেই ওমিক্রন নেদারল্যান্ডসে ছিল। তবে এটা পরিষ্কার না যে ওই দুই ব্যক্তি আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলে ভ্রমণ করেছিলেন কি না। 

এতোদিন মনে করা হয়েছিল রোববারে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা দুটি ফ্লাইটে প্রথম ওমিক্রন ধরনটি নেদারল্যান্ডসে আসে। দেশটির রাজধানী আমস্টারডামে অবতরণ করা ওই দুই ফ্লাইটের যাত্রীদের মধ্যে ৬১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে ১৪ জনের ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছিল। 

যদিও ওই দুই নমুনায় ওমিক্রন শনাক্তে এটা মনে হচ্ছে যে ওমিক্রন আগেই নেদারল্যান্ডসে ছিল। তবে সেটা অবশ্য আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের আগে নয়। কারণ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউিএইচও) বলেছে, দক্ষিণ আফ্রিকায় গত ৯ ডিসেম্বর নেওয়া নমুনা থেকে প্রথমবার ওমিক্রন শনাক্ত হয়।  

প্রাথমিক পাওয়া তথ্য-প্রমাণ দেখে ডব্লিউেএইচও মনে করছে, ওমিক্রনে পুনর্সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে। আর বিজ্ঞানীরা বলেছেন, করোনার বিদ্যমান টিকায় বার বার রূপ বদল করা এই ধরনটি কেমন প্রভাব ফেলবে তা জানার জন্য তিন সপ্তাহ সময় লাগবে। 

ধারণার আগেই ওমিক্রন দেশে ছিল ঘোষণা দিয়ে মঙ্গলবার  নেদারল্যান্ডসের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর পাবলিক হেল্থ (আরআইভিম) বলেছে, বিশেষ পিসিআর পরীক্ষায় ওই নমুনাগুলোর স্পাইক প্রোটনে অস্বাভাবিকতা দেখা যাচ্ছিল। এটা দেখেই সন্দেহ হচ্ছিল যে ওমিক্রন ধরন… সম্ভবত আছে। যাদের নমুনা নেওয়া হয়েছিল বিষয়টি তাদের জানানো হয়েছে এবং এর উৎস ও যাদের সঙ্গে তারা মিশেছিল তাদের শনাক্তের কাজ চলছে।