কঠিন অর্থনৈতিক সংকটে পড়া শ্রীলঙ্কার অতি গুরুত্বপূর্ণ অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে। বুধবার দেশটির প্রেসিডেন্টের দপ্তর থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। খবর রয়টার্সের।

মন্ত্রণালয়টির দায়িত্ব নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী রনিল এখন আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে বেইলআউট নিয়ে আলোচনায় নেতৃত্ব দিতে পারবেন। প্রেসিডেন্ট দপ্তর থেকে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বুধবার স্থানীয় সময় সকালে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা ও জাতীয় নীতিমন্ত্রী হিসেবে প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসের কাছে শপথ নিয়েছেন।

মঙ্গলবার রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বিক্রমাসিংহে অর্থনীতির জন্য তার আশু পরিকল্পনা কথা তুলে ধরেন। তিনি জানান, আগামী ছয় সপ্তাহের মধ্যে অন্তর্বর্তী একটি বাজেট পেশ করা হবে আর তাতে সরকারি ব্যয় 'যতটা সম্ভব' কাটছাঁট করা হবে।

মঙ্গলবার বিশ্বব্যাংক জানিয়েছে, শ্রীলঙ্কা একটি পরিমিত অর্থনৈতিক নীতি কাঠামো প্রণয়ন না করা পর্যন্ত সেখানে নতুন করে কোনো অর্থায়নের পরিকল্পনা নেই তাদের।

সাক্ষাৎকারে বিক্রমাসিংহে জানিয়েছেন, আইএমএফের কাছ থেকে একটি 'টেকসই ঋণ প্যাকেজ' আশা করছেন তিনি। আইএমএফের সঙ্গে দেশটির প্রাথমিক আলোচনা মঙ্গলবার শেষ হয়েছে।

চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা জানিয়েছেন, তাঁরা শ্রীলঙ্কার বিষয়ে 'নিরলস কাজ করে চলছেন'।