অসহায়ের পাশে ‘প্রথম নাসিরনগর’

প্রকাশ: ২৭ মে ২০২০   

নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

দেশে করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট মহামারিতে ঘরবন্দি কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ‘প্রথম নাসিরনগর’ নামে ফেসবুক ভিত্তিক একটি সংগঠন। এই সংগঠনটির পৃষ্টপোষক বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা, আরএকে সিরামিকসের এমডি ও নাসিরনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ এসএকে একরামুজ্জামান। ইতিমধ্যে ওই সংগঠনের পক্ষে ৫০০ অসহায় মানুষকে আর্থিক সহযোগিতা দিয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে নাসিরনগর উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা যারা বাংলাদেশর বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করছেন কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে বর্তমানে কর্মহীন তাদের মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য ‘ প্রথম নাসিরনগর’ নামে একটি প্রকল্প চালু করেন ওই বিএনপি নেতা। ফেসবুকে প্রচারের মাধ্যমে দুটি হটলাইন নম্বার দেয়া হয়। বিপদগ্রস্থরা প্রতিদিন ওই নম্বারে নিজের তথ্য প্রদান করার পর যথাথ প্রক্রিয়ায় ভেরিফাই করে উপযোগীদের আর্থিক সহযোগিতা করা হচ্ছে। তাদেরকে সর্বনিম্ন ১ হাজার টাকা থেকে শুরু করে অবস্থার আলোকে আরো বেশি অর্থও প্রদান করা হচ্ছে।

এছাড়াও উপজেলার অভ্যন্তরে ১৩টি ইউনিয়নের ১১৭টি ওয়ার্ডে ৩ হাজার মানুষকে ১ হাজার ২০ টাকা করে বিকাশের মাধ্যমে প্রদান করা হয়েছে। সম্পূর্ণ নিজের ব্যক্তিগত তত্ত্বাবধানে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের স্থানীয় ব্যক্তিবর্গদের সহযোগিতায় প্রকৃত অসহায় ও দুঃস্থদের বাছাই করছেন। যারা এখনো কোন ত্রাণ বা সরকারি সহযোগিতা পায়নি এমন লোকদের জাতীয় পরিচয় পত্র ও বিকাশ নম্বার সহকারে নামের তালিকা সংগ্রহ করা হয়। পরবর্তীতে প্রত্যেকের সাথে একরামুজ্জামান নিজে যোগাযোগ করে বিকাশ নম্বার ভেরিফাই করে টাকা পাঠাচ্ছেন।

সৈয়দ একরামুজ্জামান সমকালকে জানান, ‘করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে মধ্যবিত্তরাও কষ্টে দিন পার করছেন। আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাধ্যমতো এলাকার দিনমজুর, ছিন্নমূল ও মধ্যবিত্ত মানুষদের আর্থিক সহযোগিতা দেয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি’।

তিনি আরো বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি একটি বৈশ্বিক সমস্যা’ এখন কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ করার সময় নয়। এ মুহূর্তে সচ্ছল মানুষদের অসহায়দের সহযোগিতার হাত বাড়াতে হবে। ঘরবন্দি মানুষদের পাশে থাকতে হবে। সরকারের পক্ষ থেকে যে পরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী দেয়া হচ্ছে তা দিয়ে দিনের পর দিন চলা সম্ভব হচ্ছে না। তাই যতদিন এ দেশে করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাব থাকবে তথদিন এ মানবিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।