সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবি) শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদ ও উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনের পদত্যাগের দাবিতে নীরব অবস্থান কর্মসূচি করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক। ওই শিক্ষকের নাম ফরিদ উদ্দীন খান। তিনি রাবির অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ জোহা চত্বরে দাঁড়িয়ে নীরব এ কর্মসূচি পালন করেন তিনি। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত তিনি এ কর্মসূচি পালন করেন।

কর্মসূচির বিষয়ে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের ওপর নির্মম পুলিশি হামলার প্রতিবাদে এবং উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে এই প্রতিবাদ। একজন শিক্ষক হিসেবে, একজন অভিভাবক হিসেবে আমি ভীষণ লজ্জিত ও ব্যথিত। একজন শিক্ষকের কারণে আজ আমাদের সন্তানদের জীবন সংকটাপন্ন। হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। যে দাবি জীবনকে হার মানায় সে দাবি কখনোই অযৌক্তিক হতে পারেনা। শিক্ষার্থীদের জীবনের চেয়ে শিক্ষাঙ্গনে কোনো পদই বড় হতে পারেনা। তাই বিবেকের তাড়নায় দাঁড়িয়েছি। 

তিনি আরও বলেন, এই নীরবতার ভাষা লক্ষ শিক্ষকের, লক্ষ অভিভাবকের ক্ষোভের ভাষা, বিবেকের ভাষা। একজন অভিভাবক যখন পুলিশ ডেকে এনে সন্তানদের শায়েস্তা করেন তখন তিনি আর অভিভাবক থাকেননা। হয়ে যান একজন শাসক, নির্মম শাসক। আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে শাসক চাইনা, চাই অভিভাবক।

শাবি উপাচার্যের উদ্দেশে তিনি বলেন, উপাচার্যকে বলছি, অবিলম্বে পদত্যাগ করুন। শিক্ষক সমাজকে জাতির কাছে কলঙ্কিত করবেন না। আপনার শিক্ষকতা জীবনের অর্জনকে হেয় হতে দিবেন না। শিক্ষকদের অধিকার আদায়ে আপনার প্রশংসিত ভূমিকাকে খাটো করবেন না। শিক্ষার্থীদের বাঁচান। সন্তানদের কাছে হার মানা লজ্জার নয় বরং আনন্দের।