মন্তব্য

‘উদ্বৃত্ত ধানের কি ব্যবস্থা হবে সেটা নিয়ে কেউ ভাবছে না’

 প্রকাশ : ১৯ মে ২০১৯ | আপডেট : ১৯ মে ২০১৯      

 অনলাইন ডেস্ক

ধানের উৎপাদন খরচ না ওঠায় এবার হতাশ প্রান্তিক কৃষকরা। অথচ কৃষকের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে প্রতিবছরই ধান–চাল ক্রয় করে সরকার। কিন্তু সরকারের এই ভর্তুকির লাভ পাচ্ছে না কৃষক। বরং তাদেরকে ধান বিক্রি করতে হচ্ছে লোকসান গুণে। ধান বিক্রি করে কৃষকের লাভ না পাওয়ার কারণ, বিদ্যমান ব্যবস্থা ও সরকারের করণীয় নিয়ে সমকাল অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অর্থনীতি বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. মইনুল ইসলাম 

সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান না কিনে সরকার ধান সংগ্রহ করছে চালকল মালিকদের কাছ থেকে। এ কারণে কৃষকরা ধানের ন্যায্য দাম পাচ্ছে না। এখানে চালকল মালিক, মধ্যসত্ত্বভোগী এবং সংশ্লিষ্টদের ব্যাপক দুর্নীতি রয়েছে। এটা দুর্ভাগ্যজনক যে, আমাদের দেশে এখনও কৃষকের কাছ থেকে সরকার সরাসরি ধান কেনার ব্যবস্থা চালু করতে পারেনি। অথচ আমাদের প্রতিবেশী ভারত কিংবা ভিয়েতনামে এ ব্যবস্থা অনেকদিন ধরেই চালু আছে। 

কৃষক ধানের দাম পাচ্ছে না এর আরেকটা কারণ হলো সরকারের পক্ষ থেকে এখনও ধান কেনা শুরু হয়নি। বাধ্য হয়ে কৃষকদের ধান বিক্রি করতে হচ্ছে ফড়িয়া ব্যবসায়ী, মধ্যসত্ত্বভোগীদের কাছে। আর সরকার যখন ধান কিনছে তখন কৃষকের কাছ থেকে কিনছে না। তাদেরকে কিনতে হচ্ছে চালকল মালিকদের কাছ থেকে।

একটা সময় ছিল যখন আমাদের দেশে চালের ঘাটতি ছিল। ধান আমদানি করা হতো, সাহায্যের ওপর নির্ভর করতে হতো। এখন যখন ধান উদ্বৃত্ত হচ্ছে তখন সেটার ব্যবস্থা কি হবে তা নিয়ে কেউ ভাবছে না। এ কারণে প্রতিবছরই ধানের বাম্পার ফলন হলে কৃষককে লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে। 

এ অবস্থা থেকে বের হতে হলে কার্যকর রেশনের ব্যবস্থা করতে হবে। ফসল কাটার পর একজন কৃষক সেই ধান তার কাছে রাখতে পারছে না। সরকার যাতে কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান কিনতে পারে সেই ব্যবস্থা চালুর উদ্যোগ নিতে হবে।