শারদীয় দুর্গোৎসব চলাকালে কুমিল্লার নানুয়ারদীঘির পাড় এলাকার একটি মণ্ডপে প্রতিমা ভাংচুরের পর ঢাকার একটি ওয়াজ মাহফিলে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে কথিত ইসলামী বক্তা আব্দুর রহিম বিপ্লবীকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি। 

সিআইডির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৭টার দিকে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার শুভাঢ্যা ইউনিয়নের চুনকুটিয়া পূর্বপাড়া (আমিনপাড়া) জামে মসজিদের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি সদস্যরা। এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন সিআইডির পরিদর্শক শাজেদা লতা। 

আব্দুর রহিম বিপ্লবীর বিরুদ্ধে পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সিআইডি জানায়,প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আব্দুর রহিম  প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাম্প্রতিক উস্কানিমূক বক্তব্য দেওয়ার কথা সে স্বীকার করেছে। তার এই বক্তব্য সিআইডি পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য সংরক্ষণ করেছে। 

সিআইডি বলছে, এ ধরণের ধর্মীয় উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদানের মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করা ফৌজদারি অপরাধ।

আব্দুর রহমান বিপ্লবী ফেনীর পরশুরাম উপজেলার পশ্চিম সাহেব নগর এলাকার বাসিন্দা মৃত আব্দুল কালামের ছেলে। তিনি গত ১৫ অক্টোবর জুমার নামাজ শেষে ঢাকার পশ্চিম ধোলাইপাড় এলাকায় একটি ওয়াজ মাহফিলে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য রাখেন বলে অভিযোগ এসেছে। 

সিআইডি বলছে, তার ওই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ জনগণের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। পরে আইনশৃঙ্খলার মারাত্মক অবনতি ঘটে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় হিন্দু সম্প্রদায়ের উপাসনালয়, বাড়িঘরে হামলা হয়। পরে আব্দুর রহিম বিপ্লবীকে গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন মহল থেকে দাবি জানানো হয়।