পোস্ট অফিস ও ব্যাংকে টাকা তুলতে আসা বয়স্ক নারী-পুরুষদের টার্গেট করে তাদের কাছ থেকে অর্থ ও মালামাল কৌশলে চুরি ও ছিনিয়ে নিতো একটি চক্র। ওই চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। এ টাকা ছিল অবসরপ্রাপ্ত এক শিক্ষকের।

সোমবার দুপুরে ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস বিফ্রিংয়ের আয়োজন করা হয়। প্রেস বিফ্রিংয়ে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: জামাল পাশা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, ৮ মে জেলার মধুখালী উপজেলার জাহাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সদ্য অবসরপ্রাপ্ত সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. হাতেম মোল্যা (৬০) ফরিদপুর পোস্ট অফিস থেকে ১০ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। টাকা উত্তোলনের পর তিনি লোকাল বাসে জাহাপুর ইউনিয়নের মির্জাকান্দি গ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন। রাজবাড়ী রাস্তার মোড়ে গিয়ে তিনি দেখতে পান তার ব্যাগের চেন খোলা এবং টাকা নেই। এরপর দ্রুত কোতয়ালী থানায় এসে অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের নামে একটি মামলা করেন।

তিনি আরও জানান, মামলার পর তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালী থানার এস আই মাসুদ ফকির তদন্ত কাজ শুরু করেন। তাকে সহযোগিতা করেন এস আই মো. শামীম হাসান। পরে দুজন কর্মকর্তাই পোস্ট অফিসের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে এবং আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় অভিযান পরিচালনা শুরু করেন।

জামাল পাশা জানান, তদন্ত কর্মকর্তারা রোববার দিবাগত (২২ মে) রাতে সদর উপজেলার ডোমরাকান্দি গ্রামের জাহিদুল ইসলামকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেন। এসময় জাহিদুল টাকা চুরির কথা স্বীকার করেন। তার দেওয়া তথ্য মতে তার বাড়ি থেকে ৫ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। পরে জাহিদুলের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী আবুল হোসেনকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার বাড়ি থেকে চুরি যাওয়া বাকি ৫ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার বলেন, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের চুরি যাওয়া ১০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। চুরির ঘটনায় তিন ব্যক্তি জড়িত ছিলেন। দুই জনকে আমরা গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। অপরজনকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে। তদন্তের স্বার্থে ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করছি না।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতার দুইজন আন্তঃজেলা চোর ও পকেটমার চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা দীর্ঘদিন এ পেশার সঙ্গে জড়িত। তারা দেশের বিভিন্ন জেলায় অভিনব কায়দার চুরি করে থাকে। বিশেষ করে সরকারি পোস্ট অফিস, ব্যাংকসহ আর্থিক প্রতিষ্ঠানে আসা বয়স্ক নারী ও পুরুষদের টার্গেট করে বিভিন্ন কায়দায় তাদের কাছ থেকে অর্থ ও মালামাল হাতিয়ে নিতো তারা।

জাহাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুভাষ চন্দ্র ঘোষ বলেন, গত এপ্রিল মাসের ১১ তারিখে সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. হাতেম মোল্যা অবসরে যান। তিনি সঞ্চয় করা অর্থ গত ৮ মে ফরিদপুর পোস্ট অফিস থেকে উত্তোলন করেন। বাড়ি ফেরার পথে চুরি হয়ে যায় টাকাগুলো। পুলিশ চুরি যাওয়া টাকা উদ্ধার করায় হাতেম মোল্যার দুঃশ্চিন্তা দূর হয়েছে।