প্রথমে মালবাহী ট্রাক, পিকআপ, মাইক্রোবাস বা সিএনজিচালিত অটোরিকশায় থাকা যাত্রীদের টার্গেট করতেন তারা। সেসব গাড়ির পিছু নিয়ে নির্জন স্থানে গিয়ে নিজেদের পিকআপ দিয়ে সড়কে ব্যারিকেড দিতেন। এরপর পিস্তল ও ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সবর্স্ব নিয়ে পালিয়ে যেত চক্রটি। পণ্যবাহী পরিবহনেও একই কায়দায় ডাকাতি করে আসছিলেন এই চক্রের সদস্যরা।

পৃথক অভিযানে ডাকাতদলের ১৯ সদস্যকে গ্রেপ্তারের পর তাদের কৌশল সম্পর্কে এসব তথ্য জানায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানাতে বুধবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সুমন ছাড়া গ্রেপ্তার অপর ১০ জন হলো- মো. মোস্তফা, আরিফ হোসেন, মো. পলাশ, মো. করিম, মো. হাসান, রিপন ওরফে আকাশ, জয়নাল আবেদিন, ওমর ফারুক ফয়সাল, রাসেল ও হাফিজুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, ডিবির কাছে খবর আসে পুরান ঢাকা, মিটফোর্ড ও সিলেট হাইওয়েতে প্রায়ই ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। এতে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার কাজ শুরু হয়। এর মধ্যে জানা যায়, মিটফোর্ড হাসপাতাল পানির পাম্পের দক্ষিণ পাশে ডাকাতরা অবস্থান করছে। এরপর মঙ্গলবার রাতে সেখানে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ১১ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে ডিবি লালবাগ বিভাগ।

তিনি আরও জানান, চক্রটি ঢাকা মহানগরসহ টাঙ্গাইল, গাজীপুর, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, রাজবাড়ী ও ফরিদপুরসহ বিভিন্ন জেলার মহাসড়ক ও জুয়েলারী দোকানে ডাকাতির কথা স্বীকার করেছে। তাদের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, দুই রাউন্ড গুলি, একটি বড় ছোরা, একটি রামদা, দু'টি লোহার তৈরি চাপাতি, পুরোনো পাটের রশি, একটি পুরোনো গামছা, একটি পিকআপ ও পাঁচটি সিএনজি উদ্ধার করা হয়।

ডিবির এই কর্মকর্তা জানান, এই ডাকাতরা খুবই বেপরোয়া। ডাকাতিতে বাধা দিলে খুন করতেও পিছপা হয় না। দলটির সর্দার সুমন চৌকিদারের বিরুদ্ধে খুনসহ ডাকাতি ও দস্যুতার ১৬টি মামলা ও পাঁচটি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে। বাকিদের নামেও একাধিক মামলা আছে। এবারের ঘটনায় কোতয়ালী থানায় অস্ত্র ও ডাকাতির মামলা হওয়ায় প্রত্যেকের নামে আরও দুটি করে মামলা যুক্ত হলো।

এদিকে পৃথক অভিযানে মঙ্গলবার রাজধানীর ফার্মগেট এলাকা থেকে ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়ার সময় চাপাতি, ছুরি ও চাকুসহ ৮ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবির তেজগাঁও বিভাগ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- লোকমান হোসেন, রাব্বি মোল্লা, আসাদ মন্ডল, রানা মিয়া, মো. নাসিম ওরফে নাঈম, হাসান শেখ, মো. বাবু ও মো. হাসান।

সংবাদ সম্মেলনে ডিবি লালবাগ বিভাগের উপকমিশনার রাজীব আল মাসুদ, ডিএমপির গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখার উপকমিশনার ফারুক হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।