আফগানিস্তান

হামিদ হাসান

হামিদ হাসান

হামিদ হাসান


ওয়ানডে ক্যারিয়ার
বয়স
৩১
খেলার ধরন
বোলার
ম্যাচ সংখ্যা
৩৩
উইকেট
৫৮
সর্বোচ্চ উইকেট
৪৫/৫
গড় রান
৭.০৭
সর্বোচ্চ রান
১৭

মেরিলিবন ক্রিকেট ক্লাবের ইয়ং ক্রিকেটারসদের বিপক্ষে ২০০৬ সালে এক ম্যাচ খেলেন হামিদ হাসান। আফগানিস্তানের এই পেসার সেই ম্যাচেই অনেক প্রশংসা কুড়ান। মাইক গ্যাটিং, জোহান স্টিফেনসনরা তার প্রশংসা করেন। পরিবার থেকে ক্রিকেট খেলার উৎসাহ দেয়নি তাকে। তবে খেলার প্রতি আবেগ ছিল।

তর্কাতীতভাবে আফগানিস্তানের সেরা পেসার তিনি। ২০০৯ সালে আফগান দলে অভিষেক হয় তার। ২০১১ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে সেবার ভালো করেন তিনি। তার দল বাছাইপর্ব উৎরাতে পারেনি। তবে ওয়ানডে মর্যাদা পেয়েছিল। হামিদ সেবার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১২ উইকেট নেন। স্লগ ওভারের বোলিংয়ে জন্য নজর কাড়েন। আফগানদের মধ্যে সবচেয়ে জোরে পেস বোলিং করতে পারেন তিনি।

চোটরে কারণে অবশ্য হামিদের ক্যারিয়ার বেশি এগোয়নি। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের আগে তার চোট শঙ্কা আছে। আছে ফিটনেস নিয়েও প্রশ্ন। তারপরও তার পেস বিবেচনায় দলে নেওয়া হয়েছে। এখন নিজেকে আবার প্রমাণের পালা হামিদের। এই পেসার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগেও খেলেছেন, বরিশাল বুলসের হয়ে।