ভেন্যু

কার্ডিফ ওয়েলস স্টেডিয়াম

বিশ্বকাপ ম্যাচ: ০৪

ধারণক্ষমতা: ১৫,২০০

নির্মাণ: ১৮৫৪

কার্ডিফে হারে না বাংলাদেশ। টাইগারদের ইতিহাসে অন্যরকমভাবে জড়িয়ে আছে ইংল্যান্ডের এই মাঠটি। কার্ডিফ যেন অন্য অর্থে লাল-সবুজের বাংলাদেশ। কার্ডিফ মানে মোহাম্মদ আশরাফুলের মহাকাব্যিক শতক, কার্ডিফ মানে আফতাব আহমেদের বিশাল সেই ছক্কা, কার্ডিফ মানেই বাংলাদেশের ক্রিকেটের অমর এক রূপকথা।

২০০৫ সালে এই কার্ডিফেই রচিত হয়েছিল অজিবধের আখ্যান। ১২ বছর পর এই মাঠেই সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ মহাকাব্যিক শতকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য অন্যতম লাকি এই ভেন্যুটি ওয়েলসে অবস্থিত। ১৯৬৭ সাল থেকে মাঠটি ইংলিশ কাউন্টি দল গ্ল্যামারগানের অধীনে পরিচালিত হয়ে আসছে।

এ মাঠের দুই প্রান্ত পরিচিত রিভার টাফ প্রান্ত ও ক্যাথেড্রাল রোড প্রান্ত নামে। ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ দিয়ে এখানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু হয়। ২০০৯ সালের ৮ জুলাই অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটের সূচনা হয়।

এবারের বিশ্বকাপে চারটি ম্যাচ হবে কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে। ৮ জুন স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবেন সাকিব-মাশরাফিরা।