ভেন্যু

দি ওভাল

বিশ্বকাপ ম্যাচ: ০৫

ধারণক্ষমতা: ২৫,০০০

নির্মাণ: ১৮৪৫

১৮৭৭ সালে টেস্ট ক্রিকেট শুরু হলেও প্রথম তিন টেস্টের সবক'টিই অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়। অবশেষে ১৮৮০ সালে প্রথমবারের মতো ক্রিকেটের জনক রাষ্ট্রে শুরু হয় ক্রিকেট। কেনিংটন ওভালের সবুজ উইকেটে ঘরের মাঠে প্রথমবারের মতো খেলতে নামে ইংল্যান্ড। এর ১০ বছর আগে এই মাঠেই ইংল্যান্ড-স্কটল্যান্ডের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছিল বিশ্বের প্রথম আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচ।

দেশ দুটির মধ্যে রাগবির প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজের ম্যাচও হয়েছিল এই মাঠে। বর্তমানে এটি কাউন্টি ক্রিকেটের দল সারের হোম গ্রাউন্ড। বহু কীর্তির সাক্ষী লন্ডনের এই কেনিংটন ওভাল। ১৯৩৪ সালে এখানেই ৪৫১ রানের অমর জুটি গড়েছিলেন ডন ব্র্যাডম্যান ও বিল পন্সফোর্ড। ১৯৮৩ সালে মুদাসসার নজর ও জাভেদ মিয়াদাদ রেকর্ডটি স্পর্শ করলেও ভাঙতে পারেননি।

অবশেষে ১৯৯১ শ্রীলংকার বিপক্ষে মার্টিন ক্রো ও অ্যান্ডু জোন্স ভেঙে দেন প্রায় ৫০ বছর আগের রেকর্ডটি। শেষ ইনিংসে ব্র্যাডম্যানের বিখ্যাত 'ডাক' এই মাঠেই ঘটেছিল। সেদিন মাত্র ৪ রান করতে পারলেই ক্যারিয়ারের গড়টা ১০০ হতো স্যার ডনের। সর্বকালের সেরা এই ব্যাটসম্যানের জীবনভর হয়তো আক্ষেপের আরেক নাম হয়েই ছিল এই ওভাল।

১৯৩৮ সালে এই ভেন্যুতেই এক ইনিংসে ৯০৩ রান করেছিল ইংল্যান্ড। ওই ইনিংসে লেন হাটন করেন ৩৬৪ রান। ৫৯ বছর টিকে ছিল ইংলিশদের এই রেকর্ড। ২০ বছর পর, ১৯৫৮ সালে স্যার হাটনের রেকর্ড ভেঙে দেন গ্যারি সোবার্স (৩৬৫)। এবারের বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচসহ পাঁচটি ম্যাচ এখানেই হবে। ৫ জুন এই ভেন্যুতে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে টাইগাররা।