ভেন্যু

কাউন্টি গ্রাউন্ড টানটন

বিশ্বকাপ ম্যাচ: ০৩

ধারণক্ষমতা: ৮,০০০

নির্মাণ: ১৮৮২

ক্রিকেট মাঠ হিসেবে টানটনের ঐতিহ্য শত বছরেরও বেশি পুরনো। আন্তর্জাতিক ভেন্যুর চেয়ে কাউন্টি ক্রিকেটের দল সমারসেটের 'হোম গ্রাউন্ড' হিসেবেই ভেন্যুটির খ্যাতি বেশি। 'টন' নদীর নাম থেকেই টানটনের নামকরণ হয়েছে বলে ঐতিহাসিকরা মনে করেন। দশম শতকে স্থাপিত টানটন দূর্গের কারণেই মূলত সমারসেটের ছোট এই শহরের এতো নামডাক।

১৮৮২ সালে সমারসেট ও হ্যাম্পশায়ারের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে ক্রিকেটে অভিষেক হয় টানটনের। ১৯৭৫ সালের প্রথম বিশ্বকাপে আন্তর্জাতিক ভেন্যুর স্বীকৃতি পায় মাঠটি। সেবার স্বাগতিক ইংল্যান্ড খেলে শ্রীলংকার বিপক্ষে। এর ২৪ বছর পর ১৯৯৯ সালে আবার আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্ব পায় ভেন্যুটি। সেবার কেনিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামে জিম্বাবুয়ে।

একই আসরে ভারত-শ্রীলংকার ম্যাচটিও হয় এখানে। সৌরভ গাঙ্গুলী তার ক্যারিয়ার সেরা ১৮৩ রানের ইনিংসটি এই মাঠেই খেলেন। 'প্রিন্স অব ক্যালকাটা' সেদিন দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে রাহুল দ্রাবিড়ের সঙ্গে গড়েন ৩১৮ রানের জুটি। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে মারলন স্যামুয়েলস ও ক্রিস গেইল (৩৭২) ভাঙেন সেই রেকর্ড।

২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত মেয়েদের বিশ্বকাপের মোট সাতটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় এখানে। ২০০৬ সাল থেকে এটি ইংল্যান্ড নারী ক্রিকেট দলের হোম গ্রাউন্ড হিসেবে পরিচিত। ইংল্যান্ডের সবচেয়ে কম দর্শক ধারণক্ষমতা সম্পন্ন মাঠগুলোর একটি এই টানটন।

কালজয়ী কিছু রেকর্ডের সাক্ষী সমারসেটের এই হোমগ্রাউন্ড। ১৮৯৫ সালে ল্যাঙ্কাশায়ারের বিপক্ষে ৪২৪ রান করেন আর্চি ম্যাকলারেন। ৪৭ বছর ধরে এক ইনিংসে সবোর্চ্চ রানের রেকর্ড ছিল ছিল এটি। ১৯২৩ সালে ম্যাকলারেনের সেই রের্ড ভাঙেন বিলি পন্ডসফোর্ড (৪২৯)। ১৯৮৫ সালে এই মাঠেই একদিনে ৩২২ রান করেন ভিভ রিচার্ডস, যা আজও বিশ্বরেকর্ড।

টানটন বোলারদেরও দিয়েছে দু'হাত ভরে। এই মাঠে এক ইনিংসে তিনবার কোনো বোলারের ১০ উইকেট নেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। ১৮৯৫ সালে সারের বিপক্ষে ৪৯ রানে ১০ উইকেট নেন এডমুন্ড টেলর। ১৯০০ সালে ৪৩ রানে মিডলসেক্সের বিপক্ষে ১০ উইকেট নেন আলবার্ট ট্রট। ১৯২১ সালে সারের বিপক্ষে ১০ উইকেট নেন থমাস রাশবে। কোনো একক ভেন্যুতে এক ইনিংসে কোনো বোলারের ১০ উইকেট পাওয়ার ক্ষেত্রে টানটনের চেয়ে এগিয়ে আছে কেবল লর্ডস ও ওভাল (৭)।

এবারের বিশ্বকাপে টানটনে হবে তিনটি ম্যাচ। ১৭ জুন এই মাঠেই গেইল-রাসেলের ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলবে মাশরাফি-সাকিবের বাংলাদেশ।