নগরকান্দায় স্কুলছাত্রের মৃতদেহ মিলল 'হত্যাকারীর' দেওয়া তথ্যে

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০১৯      

নগরকান্দা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি

ফরিদপুরের নগরকান্দায় নিখোঁজের ১৬ দিন পর হত্যাকারীর দেখানো স্থান থেকে প্রতিবন্ধি এক শিশুর গলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

বুধবার উপজেলার পুরাপাড়া খালের পানির কচুরিপানার নিচ থেকে ওই মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

শিশু আবু বক্কর (৭) পুরাপাড়া ইউনিয়নের মেহেরদিয়া গ্রামের পাঁচু খলিফার ছোট ছেলে। সে মেহেরদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল। গত পহেলা জুলাই বিকালে সে নিখোঁজ হয়।

পুলিশ জানায়, বুধবার ভোরে নিহত আবু বক্করের আপন চাচাতো ভাই একই গ্রামের প্রয়াত টুকু খলিফার ছেলে কলেজছাত্র শাওন হোসেন দিনদারকে পুলিশ আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করে। এ সময় শাওন আবু বক্করকে হত্যার কথা স্বীকার করে। পরে দুপুরে তার দেখানো স্থান থেকে গলিত বক্করের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শিশুটির বাবা পাচু খলিফা বলেন, পহেলা জুলাই সন্ধ্যার আগে আবু বক্করকে বাড়ির উদ্দেশ্যে প্রতিবেশী মাহবুলের অটো ভ্যানে করে পাঠিয়ে দেই। পরে জানতে পারি বক্কর বাড়ি যায়নি। অনেক খোঁজাখুঁজি করে পাওয়া যায়নি। আমার মোবাইল ফোনে আমাকে ফোন করে বলা হয়- ওকে ফিরে পেতে হলে তিন লাখ টাকা নিয়ে মাওয়া ঘাটে যেতে হবে। সেখানে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। ওই ঘটনায় একটি মামলা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মিরাজ হোসেন বলেন, যে মোবাইল নম্বর দিয়ে ফোন করে মুক্তিপন চাওয়া হয়েছিল সেই ফোন ট্র্যাকিং করে আমরা আসামি শাওনকে আটক করি।  শাওনের স্বীকারোক্তিমূলক এবং শাওনের দেখানো স্থান থেকে শিশুটির গলিত লাশ উদ্ধার করি।   

নগরকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান জানান, আবু বক্করকে হত্যার পর তার কাছে থাকা একটি মোবাইল ফোনের সিমকার্ড দিয়ে হত্যকারী শাওন ৩ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। এরই সূত্র ধরে শাওনকে আটক করা হয়। নিখোঁজের পর আবু বক্করের বাবার বাদী হয়ে করা মামলাটি এখন হত্যা মামলা হিসেবে অর্ন্তভুক্ত হবে বলে জানান তিনি।

বোরহানুজ্জামান আনিস
০১৭২১৯৯১০৮৫
১৭ জুলাই ২০১৯