দৌলতদিয়ায় কমেনি ভোগান্তি

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯      

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি

নদী পারাপারের অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের দীর্ঘ সারি -সমকাল

তীব্র স্রোতে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে নৌযান চলাচলে অচলবস্থা কাটেনি। প্রচণ্ড স্রোতের বিপরীতে বেশির ভাগ ফেরিই স্বাভাবিক ভাবে চলতে পাড়ছে না। এছাড়া ৩টি ফেরি পুরোপুরি বসিয়ে রাখা হয়েছে। যে ফেরিগুলো চলাচল করছে সেগুলোরও নদী পার হতে স্বাভাবিকের চেয়েও অনেক বেশি সময় লাগছে। 

এসব কারণে গত কয়েকদিন ধরে এ রুটে যানবাহন পারাপার চরমভাবে ব্যহত হচ্ছে। নদীর উভয় পাড়ে আটকা পড়ছে সহস্রাধিক যানবাহন। শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত দৌলতদিয়া ঘাট থেকে গোয়ালন্দ পৌরসভা পর্যন্ত প্রায় পৌনে ৭ কিলোমিটার জুড়ে মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আটকে পড়া যানবাহনের যাত্রী ও চালকরা সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। দীর্ঘ সময় আটকে থেকে কয়েকশ কাঁচামালবাহী ট্রাকের পণ্য পচতে শুরু করেছে। 

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া অফিসের ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ রনি জানান, তীব্র স্রোতের কারণে চলাচলকারী ১৫টি ফেরির মধ্যে ৩টি চলাচল করতে পারছে না। অন্য ফেরিগুলোরও ট্রিপে অতিরিক্ত সময় লাগায় ঘাট এলাকায় যানবাহনের লম্বা সিরিয়ালের সৃষ্টি হয়েছে। 

এদিকে শুক্রবার দৌলতদিয়া ঘাট পরিদর্শনে আসেন বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর মাহবুবুল ইসলাম। তিনি পরিদর্শন শেষে জানান, বর্তমান পরিস্থিতি ও আসন্ন ঈদের কথা মাথায় রেখে নৌরুট স্বাভাবিক রাখতে তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ সময় সহকারী কমিশনার (ভুমি) আব্দুল্লাহ আল মামুন, বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া অফিসের ম্যানেজার আবু আব্দুল্লাহ রনিসহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।