গোয়ালন্দে আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ৪

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০১৯      

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি

 রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে একজনের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের চারটি বাড়িতে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এদিকে ওই ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে ৩৬ জনকে আসামি করে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় হত্যা মামলা করেছেন নিহতের বাবা মোবারক মোল্লা। মামলার এজহারভুক্ত ৪ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন- উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের কাউয়ালজানি গ্রামের হানিফ মোল্লার ছেলে হাফিজুল ইসলাম (৩৮), প্রয়াত মৈজদ্দিন শেখের ছেলে আ. সামাদ শেখ (৫০), কালাম শেখের ছেলে মাসুদ রানা (২৪) ও আয়নাল মন্ডলের ছেলে আরিফ মন্ডল (৩০)।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, সোমবার বিকেলে দেবগ্রাম ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত হন রেজাউল মোল্লা ওরফে আবু ডাক্তার (৩৫)। রাতে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার সময় তার মৃত্যু হয়।

এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ছে বিক্ষুব্ধ লোকজন দেবগ্রাম ইউনিয়নের কাউয়ালজান গ্রামের প্রতিপক্ষ আ. সামাদ শেখ, সাইফুল ইসলাম, আ. ছালাম ও আবুল কালামের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেন।

ভুক্তভোগী আ. সামাদ শেখের স্ত্রী কমেলা বেগম (৫৫) জানান, সোমবার রাতে বেশ কিছু লোকজন  এসে তাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে টিভি, ফ্রিজসহ ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এ সময় ওয়ারড্রফের ড্রয়ার ভেঙে ৫০ হাজার টাকা ও ৩ জোরা স্বর্ণের রুলী, স্বর্ণের হার, ৩টি চেইনসহ অন্যান্য স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।

তিনি আরো জানান, তার ছেলে কোন মারামারির মধ্যে ছিল না, শুধু কয়েকদিন আগে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে আতর আলী সরদারের পক্ষে কাজ করায় তাদের বাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, দেবগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নব নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম ও সদ্য সাবেক চেয়ারম্যান আতর আলী সরদারের সমর্থকদের মধ্যে ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত আবু ডাক্তার হাফিজুল চেয়ারম্যানের মেয়ের দেবর।

এ ঘটনায় উভয় পক্ষের আরো অন্তত ২০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে গুরুতর কয়েকজনকে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি রবিউল ইসলাম জানান, শান্তি-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। সোমবারের সংঘর্ষে একজন নিহত হওয়ার ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।