যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়ায় মালবাহী ট্রেনের ইঞ্জিনের নিচে পড়ে দুইজন নিহত হয়েছেন। সোমবার সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে নওয়াপাড়া বেঙ্গলগেট রেলক্রসিংয়ের পাশে এ দুর্ঘটনায় আরও একজন আহত হয়।

নিহতরা হলেন- খুলনার দীঘলিয়া উপজেলার পানিগাতি গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে মিঠু শেখ (২৫) ও চাপাই নবাবগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা দীপক মন্ডল (৩৫)।

নওয়াপাড়া রেল স্টেশন সূত্র জানায়, সোমবার সন্ধ্যায় নওয়াপাড়ার বেঙ্গলগেট রেলক্রসিং এলাকায় রেললাইনের ওপর বসে তিনজন মোবাইলে কথা বলছিলেন। এ সময় পার্বতীপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি মালবাহী ট্রেন নওয়াপাড়া রেলস্টেশনে আসছিলো। সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে ট্রেনটি নওয়াপাড়া স্টেশনের প্রবেশের মুখ বেঙ্গলগেট রেলক্রসিং এলাকায় পৌঁছায়। এসময় পাশেই রেললাইনে অপর একটি মালবাহী ট্রেন শাটিং করছিল। পার্বতীপুর থেকে ছেড়ে আসা মালবাহী ট্রেনের আলো দেখে তারা সামনে লাফ দেন। এতে শাটিং ট্রেনের ইঞ্জিনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই মিঠু শেখ নিহত হন। এ সময় আহত দীপক মন্ডল ও হোসেন আলীকে অভয়নগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে দীপক মন্ডল মারা যায়। পরে আহত হোসেন আলীকে (৩৫) অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নেওয়া হয়। তার অবস্থা মারাত্মক হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

অভয়নগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শুভ্র প্রসূণ মুখার্জী বলেন, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে হোসেন আলীকে হাসপাতালে আনা হয়। তার দুই হাত কাটা গেছে। তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

নওয়াপাড়া রেলওয়ে স্টেশনমাস্টার মো. মহসিন রেজা বলেন, মালবাহী ট্রেনের ইঞ্জিনে কেটে দুইজন নিহত হয়েছেন এবং একজন আহত হয়েছেন।