ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে ৩০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার করটিয়া থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব পাড় পর্যন্ত এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ট্রাক, পিকআপ ও মোটরসাইকেলে চলাচল করা ঘরমুখো মানুষ।

জানা যায়, মহাসড়কের করটিয়া, টাঙ্গাইল বাইপাস, এলেঙ্গা, সল­ঙ্গা ও হাতিয়া এলাকায় যানবাহনের সাথে যাত্রীদের জটলা সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশের চেকপোস্ট থাকায় যে যেখান থেকে সুযোগ পাচ্ছে খালি কোন যানবাহন দেখলেই তাতেই উঠে বসছে। তাদের অধিকাংশই গার্মেন্টস কর্মী। ঘরমুখো এসব মানুষদের গুনতে হচ্ছে চার থেকে পাঁচ গুন বেশি ভাড়া। গাদাগাদি করে বাড়ি ফেরা এসব মানুষদের মাঝে বেড়ে যাচ্ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি। 

এদিকে চন্দ্রা, গোড়াই, মির্জাপুর ও দেওহাটা এলাকায় যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ রয়েছে। যার অধিকাংশই উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলার লোক। 

রিপন নামে একজন যাত্রী জানান, গার্মেন্টস ছুটি হয়েছে। যত কষ্টই হোক আর ভাড়া যতই লাগুক বাড়িতে যেতেই হবে। কারণ পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ করার আনন্দই আলাদা। 

এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত বলেন, যানবাহন প্রচুর থাকায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপার থেকে গাড়ি টানতে না পারায় টাঙ্গাইলের অংশে থেমে যানবাহন চলাচল করছে। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে স্বাভাবিক হবে। মহাসড়কে যে কোন পরিস্থিতিতে পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করছে।

বিষয় : যানজট ঢাকা-টাঙ্গাইল

মন্তব্য করুন