মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার ভাড়ারিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম শানবান্ধা গ্রামের স্কুল ছাত্রী সিনহা আক্তারকে (৭) ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে গ্রেপ্তারকৃত আসামি সিফাত হোসেন শাকিলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে স্বজনসহ স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টার দিকে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা শিমুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সিনহার পরিবার ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে নিহত সিনহার বাবা আব্দুল হালিম, শিমুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামছুল হক, মোসাম্মদ রেহেনা আক্তার, আল মামুন, আনোয়ার পারভেজ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এসময় বক্তারা বলেন, অভিযুক্ত সিফাত হোসেন শাকিল যে ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে তা ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ। সে প্রথমে সিনহাকে ধর্ষণ করে তার পরে গলাটিপে হত্যা করে। শাকিলকে ফাঁসি দিয়ে দেশ একটা দৃষ্টান্তমুলক উদাহরণ সৃষ্টি করুক। যাতে করে দেশে এই রকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়।

প্রসঙ্গত, শাকিল ও শিশু সিনহার বাড়ি পাশাপাশি। গত ২১ মে বিকাল তিনটার দিকে কিশোর শাকিল খেলার কথা বলে শিশু সিনহাকে চকের মাঝখানে একটি কাঠবাগানে নিয়ে যায়। বাগানের আশেপাশে কেউ না থাকায় শাকিল সিনহাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে হত্যা করে গামছা দিয়ে একটি মেহগনি গাছের সাথে সিনহার গলা বেঁধে শুকনো পাতা দিয়ে লাশটি ঢেকে রাখে শাকিল। পরে সিনহার নানা আব্দুল বারেক মানিকগঞ্জ সদর থানায় একটি অভিযোগ করেন। এর পর অভিযান চালিয়ে সন্দেহজনকভাবে শাকিলকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে গত ২৫ মে রাতে শাকিল পুলিশের কাছে ধর্ষণ ও হত্যার কথা স্বীকার করে। গত ২৬ মে দুপুরে মানিকগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে পাঠানো হলে কিশোর শাকিল আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকরোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে শাকিলকে গাজীপুর কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

মন্তব্য করুন