যশোরের চৌগাছা সীমান্তে অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে আটক প্রিয়া কর্মকার নামে ভারতীয় এক  তরুণীকে ফেরত পাঠিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। শুক্রবার পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ওই তরুণীকে ভারতে ফেরত পাঠানো হয়। এ ঘটনায় আটক অপর সাত বাংলাদেশিকে চৌগাছা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন ৪৯ বিজিবি যশোরের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর আবুল হাসান মো. তৌফিক মাহমুদ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ভারতীয় নাগরিক প্রিয়া কর্মকারকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে দেশে ফেরত পাঠানো হলেও তার প্রেমিক বাংলাদেশি নাগরিক সৌরভ সরকারকে (২৫) থানায় সোপর্দ করেছে বিজিবি। প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরেই ওই তরুণী সীমান্ত পার হয়েছিলেন।

বিজিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে চৌগাছা সীমান্তের হিজলী বিওপির টহলদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভারতীয় নাগরিকসহ পাচারকারী দলের সদস্যকে আটক করে। ভারতীয় নাগরিক প্রিয়া কর্মকার উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বনগাঁ থানার টেংরাইল গ্রামের বাসিন্দা।

শুক্রবার বিকেলে অবৈধভাবে প্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় নাগরিককে কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ১০৭ বিএসএফের উত্তর বয়রা কোম্পানি সদরের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। একই সঙ্গে অবৈধ অনুপ্রবেশের সহায়তাকারী  বাংলাদেশি নাগরিকদের চৌগাছা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, আটকদের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের চেষ্টার অভিযোগে পাসপোর্ট আইনে মামলা করেছে বিজিবি। শনিবার তাদের যশোর আদালতে সোপর্দ করা হবে।

আটকরা হলেন- যশোরের শার্শা উপজেলার কানাইনগর গ্রামের শংকর সরকারের ছেলে সৌরভ সরকার (২৫), একই গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে আরিফ হোসেন (২২), ঝিকরগাছার কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের হাসেম আলীর ছেলে সুজন (২০), রফিকুল ইসলামের ছেলে জালাল উদ্দীন (১৮), একই গ্রামের নোমান হোসেন (২৭), তাদের বহনকারী ইজিবাইক চালক একরামুল (২০) এবং চৌগাছার গদাধারপুর গ্রামের মৃত আজম আলীর ছেলে আশ্রয়দাতা আখের আলী (৫৫)।