জোর করে সন্তান নিয়ে যাওয়ায় স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে হালেমা আক্তার নামে এক নারী আত্মহত্যা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। শুক্রবার উপজেলার কাইটাইল ইউনিয়নে জঙ্গলটেঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলার ২নং চানগাঁও ইউনিয়নে শাহাপুর গ্রামের রিকুলের ছেলের সঙ্গে ৫ বছর আগে কাইটাইল ইউনিয়নের জঙ্গলটেঙ্গা গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে হালেমা আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের তামীম নামে দু'বছরের একটি সন্তান রয়েছে।

এদিকে স্বামী টিপু মিয়া গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করায় প্রথম স্ত্রী হালেমা বিষয়টি জেনে যায়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত।

নিহতের স্বজনরা জানায়, ২২ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় স্ত্রীর একটি সন্তান হলে হালেমা স্বামীর সঙ্গে ২৩ সেপ্টেম্বর ঝগড়া করে গ্রামেরবাড়ি জঙ্গলটেঙ্গা চলে আসে। ২৪ সেপ্টেম্বর স্বামী টিপু মিয়া প্রথম স্ত্রী হালেমার কাছ থেকে জোরপূর্বক তার সন্তান তামীমকে কেড়ে নিয়ে আসে। অনেকটা জায়াগা তার পিছু নিলেও সন্তানকে তার কাছে রাখতে পারেনি। পরে অভিমান করে আবার বাবারবাড়ি এসে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। বিষয়টি এলাকাবাসী জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়।

মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।