ফরিদপুরের আলোচিত মানি লন্ডারিং মামলার আসামি, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ও সাবেক স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর এপিএস এএইচএম ফোয়াদকে রিমান্ডে পাঠিছেন আদালত।

বুধবার বিকেলে একটি হত্যা মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে তাকে ফরিদপুরের ১ নম্বর আমলি আদালতে হাজির করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত তার বিরুদ্ধে দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সমকালকে বিষয়টি জানিয়েছেন কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্দ) মো. গফ্ফার হোসেন।

এর আগে দুপুরে ফরিদপুরের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও তদন্ত) জামাল পাশা বলেন, মঙ্গলবার রাতে ফোয়াদকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে ফরিদপুরে নিয়ে আসা হয়। তিনি ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে হামলা মামলারও আসামি। সবমিলে আটটি মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। দীর্ঘদিন ধরে আত্মগোপনে ছিলেন তিনি।

জামাল পাশা বলেন, ২০১৫ সালের ১৫ জুন বাসস্ট্যান্ডে শ্রমিক ছোটন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ফুয়াদকে।

তিনি ২০১৮ সালের ২১ মার্চ ফরিদপুর জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হন। এর আগে এক যুগ ধরে তিনি জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায় ছিলেন।