সিলেটে ক্যাম্পাসে কলেজছাত্র আরিফুল ইসলাম রাহাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি সামসুদ্দোহা সাদীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার রাতে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ইউনিয়নের দুর্গম চর এলাকা থেকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) তাকে গ্রেপ্তার করে। 

বুধবার ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে সিআইডি জানায়, সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে দক্ষিণ সুরমা সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র রাহাতকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে সাদী। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ছাত্রলীগ কর্মী সাদী নিজের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে।

বুধবার রাতেই কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে ঢাকা থেকে সাদীকে সিলেটে নিয়ে আসা হয়। সিলেটে সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহ মোস্তফা তারিকুজ্জামান বলেন, এরই মধ্যে মামলার তদন্তের দায়িত্ব সিআইডির কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আজ সংবাদ সম্মেলনে মামলার বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করা হবে।

গত ২১ অক্টোবর দুপুরে দক্ষিণ সুরমা সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে রাহাতকে ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়।

বুধবার ঢাকায় সংবাদ সম্মেলনে সিআইডি জানায়, নিহত রাহাত আসামি সাদীর চেয়ে বয়সে ছোট ছিলেন। রাহাত 'ভাইয়া' বলে সম্বোধন না করায় তাকে ছুরিকাঘাতে খুন করে সাদী। 

হত্যাকাণ্ডের পরপর সাদী পালিয়ে ঢাকার মিরপুরে আত্মগোপন করে। সেখান থেকে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার জন্য সে কুষ্টিয়ার দুর্গম চরে অবস্থান নেয়।