লক্ষ্মীপুরে মো.সুজন নামের এক চালককে হত্যা করে অটোরিকশা নিয়ে পালিয়েছে দৃর্বৃত্তরা। সোমবার দুপুরে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের চরভূতা গ্রামের রহমত খালেরপাড় থেকে নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত সুজন পার্শ্ববর্তী তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের শহর কসবা গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে।

নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে খাল পাড়ে সুজনের মৃতদেহ দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। পরে পুলিশ এসে তার মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহতের মা খুকি বেগম ও বাবা আলাউদ্দিন জানান, প্রতিবেশী শামছুলের অটোরিকশা ভাড়ায় চালাতো সুজন। রোববারও অটো নিয়ে বের হয় সুজন।  কিন্তু রাতে সে আর বাড়ি ফেরেনি। সোমবার সকালে তার মরদেহ পাওয়ার খবর শোনেন তারা। তাদের ধারণা, প্রতিবেশীর সঙ্গে জমি সংক্রান্ত বিরোধে জেরে পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি মো.জসিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি হত্যাকাণ্ড। নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ অটোরিকশা উদ্ধার ও ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে তৎপর রয়েছে বলেও জানান তিনি।