মৌসুমী ফল ও শাকসবজিসহ বিভিন্ন কৃষিপণ্য নেদারল্যান্ডসে রপ্তানির ক্ষেত্রে বাধা কাটছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। তিনি জানিয়েছেন, দেশে উন্নত জাতের পেঁয়াজ ও আলুর উন্নত জাত উদ্ভাবন, উৎপাদন ও সংরক্ষণে প্রযুক্তিগত সহায়তা দেবে নেদারল্যান্ডস।

বুধবার সচিবালয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক এসব কথা বলেন। 

ইউরোপের বাজারে কৃষিপণ্যের রপ্তানি এবং কৃষিখাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়াতে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে সরকারি ও বেসরকারি শিল্পোদ্যোক্তাদের একটি প্রতিনিধিদল ৯-১৮ নভেম্বর নেদারল্যান্ড ও যুক্তরাজ্য সফর করেছেন। এ বিদেশ সফর ও কৃষির সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে বুধবার সকালে কৃষিমন্ত্রী প্রেস ব্রিফিং করেন।

কৃষিমন্ত্রী জানান,  সফরের প্রথম দিন নেদারল্যান্ডসের কৃষি মন্ত্রণালয় ও কৃষি-খাদ্য বিষয়ক সরকারি কর্মকর্তা-বেসরকারি উদ্যোক্তাদের সাথে প্রতিনিধি দলের মতবিনিময় হয়েছে। 

তিনি বলেন, ‘সেখানে নেদারল্যান্ডসের কৃষি মন্ত্রণালয় জানায়,  বাংলাদেশে অ্যাক্রিডিটেশন ল্যাব উন্নয়নে ও ফাইটোস্যানিটারি সার্টিফিকেট দেওয়ার জন্য তারা সহযোগিতা দেবে। এর ফলে নেদারল্যান্ডে কৃষিপণ্য রপ্তানির বিরাট সম্ভাবনা তৈরি হবে । বাংলাদেশের কৃষিপণ্য রপ্তানির বাধা দূর করতে নেদারল্যান্ডের প্রতিনিধিদলের সবাই একযোগে কাজ করবে। ’

এছাড়া ওই বৈঠকে রপ্তানির ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বা ডকুমেন্টেশন তৈরিতেও তারা সহযোগিতা প্রদান করার আশ্বাস এসেছে। বীজ উৎপাদন ও পরিবহণে এবং কৃষি প্রক্রিয়াজাতে দুদেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার ও সহযোগিতা বৃদ্ধি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।

আলু, শাকসব্জি, আমসহ কৃষিজ নানা পণ্য রপ্তানির বিশাল সম্ভাবনা থাকলেও সেই সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগাতে যাচ্ছে না বলে জানান মন্ত্রী।

আব্দুর রাজ্জাক জানান, ‘গত অর্থবছরে কৃষিপণ্য রপ্তানি পূর্বের বছরের তুলনায় প্রায় চারগুণ বেড়ে ১ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করেছে। রপ্তানির এই প্রবৃদ্ধি টেকসই ও ত্বরান্বিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর এবং এ লক্ষ্যে প্রাইমারি প্রসেসিং, প্যাকিং হাউস ও টেস্টিং ক্যাপাসিটি উন্নয়ন তথা আন্তর্জাতিক মানের ল্যাব উন্নয়ন ও স্থাপনে কাজ করছে। 

তিনি বলেন, আমরা কৃষিকে লাভজনক ও বাণিজ্যিকীকরণ করতে চাই। এটি করতে হলে কৃষিপণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধি, দেশে কৃষি প্রক্রিয়াজাত শিল্পপ্রতিষ্ঠান স্থাপন ও প্রক্রিয়াজাতকরণের মাধ্যমে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজার বিস্তৃত করতে হবে। এতে উৎপাদন মৌসুমে কৃষকের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি ও লাভ নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। এসব উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই আমরা নেদারল্যান্ড ও যুক্তরাজ্য সফর করেছি। আমাদের দুটো উদ্দেশ্য ছিল- বিদেশে কৃষিপণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধি করা, দ্বিতীয়ত দেশে কৃষি প্রক্রিয়াজাত শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা।’ 

নেদারল্যান্ডসের ইমেলুর্ডে শীর্ষস্থানীয় পেঁয়াজ উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাত, প্যাকেজিং ও রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান ‘ওয়াটারম্যান ওনিয়ন্স’ (Waterman Onions)’ পরিদর্শন ও কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন সফরকারীরা।  

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘ওয়াটারম্যান ওনিয়ন্স সারা বিশ্বে বছরে প্রায় ১ লাখ ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানি ও বিপণন করে। তারা ২০১৯-২০ বাংলাদেশে ১২ হাজার টন পেয়াজ রপ্তানি করেছে। সেখান থেকে পেঁয়াজের উন্নত জাত, উৎপাদন বৃদ্ধির প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করেছি আমরা। আমাদের দেশে পেঁয়াজ সংরক্ষণে সমস্যা রয়েছে। সংরক্ষণের অভাবে অনেক পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়। পেঁয়াজ সংরক্ষণকাল বৃদ্ধির প্রযুক্তিগত সহায়তা দিবে নেদারল্যান্ডস।’

বাংলাদেশে সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর মাসে পেঁয়াজের ঘাটতি দেখা দিলে নেদারল্যান্ডস থেকে পেঁয়াজ আমদানির বিষয়টিও নিয়ে ওয়াটারম্যান ওনিয়ন্সের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানান তিনি।

ইমেলুর্ডে এগ্রোফুড ক্লাস্টারে আলুর উন্নত জাত, উৎপাদন, প্রসেস ও সংরক্ষণ প্রযুক্তি দেখে এসে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘দেশে যে আলু উৎপাদন হয় তা শিল্পে ব্যবহার উপযোগী ও রপ্তানিযোগ্য নয়। আলু উৎপাদন ও সংরক্ষণে নেদারল্যান্ডস সহযোগিতা দিবে।’

মন্ত্রী জানান, নেদারল্যান্ডের নাল্ডভিকের ইউরোপাতে অবস্থিত ‘ওয়ার্ল্ড হর্টিকালচার সেন্টার (ডব্লিউএইচসি) জানিয়েছে গ্রিন হাউজে উচ্চ ফলনশীল সবজির বীজ উৎপাদন, বছরব্যাপী সবজি এবং ফুল উৎপাদনের জন্য প্রযুক্তিগত সহায়তা দেবে তারা। সীমিত জমি, পানি এবং উৎপাদনের অন্যান্য উপকরণ ব্যবহার করে উৎপাদন সক্ষমতাকে সর্বোচ্চ করা, সম্পদের টেকসই এবং লাভজনক ব্যবহারে ডব্লিউএইচসি কারিগরি সহায়তা দেবে।

ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী জানান, আন্তর্জাতিক মানের ল্যাবরেটরি স্থাপন, ইন্টার ল্যাবরেটরি টেস্টিং ভ্যালিডেশন, ISO 17025 Standard এর জন্য কারিগরি সহযোগিতা প্রদানের ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্যের ফুড স্ট্যান্ডার্ড এজেন্সি এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হবে। এছাড়া  গ্রীনিচ ইউনিভার্সিটির সাথে প্রশিক্ষণ সহযোগিতার প্রক্রিয়া এবং ব্রিটেনের সুপার স্টোর সেইন্টসবারি, আজডা, টেসকোর সাথে ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বারের মাধ্যমে বাজার সংযোগ সৃষ্টি হবে।

ডিজেলে ভর্তুকি ও সারের দাম বৃদ্ধি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, কৃষকদেরকে আপাতত ডিজেলে ভর্তুকি দেয়ার পরিকল্পনা নেই। এছাড়া, কৃষকদেরকে সেচকাজের জন্য ডিজেলে ভর্তুকি দেয়ার প্রক্রিয়াটি বেশ জটিল। সেচের কথা বলে পাম্পে বা অন্যত্র কাজে লাগায়। আর বিশ্ব বাজারে সারের দাম চারগুণ বাড়লেও দেশে সরকার এই মুহূর্তে সারের দাম বাড়াবে না।

ব্রিফিংয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও সচিবের রুটিন দায়িত্বরত ড. মো: আবদুর রৌফ, অতিরিক্ত সচিব মো: রুহুল আমিন তালুকদার, হাসানুজ্জামান কল্লোল, কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ, প্রাণ আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী, এসিআই এগ্রো লিংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও এফএইচ আনসারী, স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজের চিফ অপারেটিং অফিসার পারভেজ সাইফুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

১৫ সদস্যের প্রতিনিধিদলে ছিলেন প্রাণ আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী, এসিআই এগ্রো লিংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও এফএইচ আনসারী, স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজের চিফ অপারেটিং  অফিসার পারভেজ সাইফুল ইসলাম, জেমকন গ্রুপের ডিরেক্টর কাজী ইনাম আহমেদ, মেঘনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, গ্লোবপ্যাক ফুডস অ্যান্ড বেভারেজ (ইউকে) লিমিটেডের ডিরেক্টর নুরুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ ফ্রুটস, ভেজিটেবল অ্যান্ড এলাইড প্রোডাক্ট এক্সপোর্টার্স  অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট জাহাঙ্গীর হোসেন।