চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও থানার মোহরা এলাকায় গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে গৃহকর্তা ও তার স্ত্রীকে বেধে, পিটিয়ে ডাকাতরা নগদ ৬৫ হাজার টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণ লুট করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে মোহরার এ কে খান বাড়ির তিন তলায় এ ঘটনা ঘটে।

চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মঈনুর রহমান চৌধুরী বলেন, ' সোমবার সকালে ঘটনাটি জানার পরই আমরা ঘটনাস্থলে যাই। লোকজনের সঙ্গে কথা বলে আমরা ডাকাতদের বিষয়ে জানার চেষ্টা করছি। বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখছি।’

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ৬ জনের একটি ডাকাত দল ঘরের বেডরুমের গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে। এ সময় তারা মুখোশ পরিহিত অবস্থায় ছিল। ঘরে ঢুকেই গৃহকর্তা মহিউদ্দিন সাদেক ও তার স্ত্রীকে ক্লোরোফিল দিয়ে অচেতন করার চেষ্টা করলে তাদের ঘুম ভাঙে। এ সময় ডাকাতদলের সদস্যরা তাদের মুখবেঁধে মারধর করে। 

এতে সাদেকের নাক ফেটে যায়। চিৎকার না যাতে না করতে পারেন সেজন্য ডাকাতদের একজন সাদেকের স্ত্রীর গলায় ছুরি ধরে রাখে। আর বাকি সদস্যরা বেডরুমের আলমারি থেকে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কারসহ মূলবান মালামাল লুট করতে থাকেন। 

একপর্যায়ে ডাকাতদের মালামাল লুটের শব্দে পাশের ঘরে থাকা সাদেকের ছেলে ( ২১) ছুটে আসেন। তাকেও আঘাত করে ডাকাতরা। এভাবে তাদের জিম্মি করে ১০ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৬৫ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাত দল। 

পরে তাদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন এবং তাদের বাঁধন খুলে দিয়ে উদ্ধার করেন। 

খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘরটি পরিদর্শন করে। তবে সোমবার এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।