ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিটি গঠন নিয়ে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের দু'পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে। আসন্ন সম্মেলন সামনে রেখে প্রভাবশালী এক নেতার 'পকেটকমিটি' অন্যদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন অপর পক্ষের নেতাকর্মীরা। এ লক্ষ্যে উপজেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান জেলা শাখার অনুমোদন ছাড়াই কাউন্সিলর নিয়োগ দিয়েছেন বলে শুক্রবার শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম চত্বরে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সদর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ছিদ্দিক হোসাইন স্বাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রশিদাবাদ ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক এম এ জুবায়ের। এতে বলা হয়, অ্যাডভোকেট আতাউর সদরের ১১টি ইউনিয়নে কমিটি দেওয়া নিয়ে দলের গঠনতন্ত্রসহ কোনোরকম গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অনুসরণ করছেন না। তিনি জেলা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটুর মদদে ইউনিয়ন কমিটির জন্য নিজেদের খেয়াল খুশি মতো তালিকা তৈরি করেছেন। এজন্য আসন্ন সম্মেলন ও কাউন্সিল নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে না। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মামুন আল মাসুদ খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গিয়াস উদ্দিন, মো. মফিজ, ইব্রাহীম খলিল, মাজহারুল ইসলাম মাসুদ প্রমুখ।

অ্যাডভোকেট আতাউর বলেন, দলের গঠনতন্ত্র মেনে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতেই ইউনিয়ন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আসন্ন সম্মেলনকে প্রভাবিত করতে অনেকে মিথ্যাচার করছেন।