নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় নববিবাহিত দম্পতিকে নিয়ে আসা ট্রলার থেকে ৩০ লক্ষাধিক টাকার মালপত্র লুটেছে ডাকাতরা।

সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার মেঘনা শিল্পনগরীর ফ্রেশ সুগার মিলসংলগ্ন মেঘনা নদীতে এ হামলা হয়। এ সময় ডাকাতরা ওই ট্রলারে থাকা ১২ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। আহতরা সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চরগোয়ালদী গ্রামের মালয়েশিয়াপ্রবাসী নূরে আলম শুক্রবার পাশের কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় বিয়ে করেন। সোমবার বর পক্ষের লোকজনের দাওয়াত ছিল কনে শারমিনের গ্রাম মেঘনার সাতআনিতে। সেখান থেকে ফেরার পথে সন্ধ্যায় মেঘনা নদীর প্রতাপের চর এলাকায় ফ্রেশ সুগার মিলের কাছে ডাকাতরা ট্রলারে হানা দেয়।

১০-১৫ জন সশস্ত্র ডাকাত যাত্রীদের চাপাতি-লোহার রড ও আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। পরে ৭ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ এক লাখ টাকা, মোবাইল ফোনসেটসহ প্রায় ৩০ লাখ টাকার মালপত্র ছিনিয়ে নেয়। এ সময় আহত হন বর নূরে আলম, আব্দুল বাতেন, জুবায়ের, হাফেজ আহম্মদ, আবু ছালেহ, শাহ পরান, সেলিম, বিল্লাল, নাসরিন, নূরজাহান, খোদেজাসহ ১২ জন। তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়।

আহত জুবায়ের বলেন, মুখোশধারী ডাকাতরা অপর একটি ট্রলার নিয়ে তাদের ট্রলারে হানা দেন। পরে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে-পিটিয়ে স্বর্ণালংকার, টাকা ও মালপত্র লুটে নেন।

নারায়ণগঞ্জ নৌ পুলিশ সুপার মিনা মাহমুদা বলেন, ঘটনার খরর পেয়ে সংশ্লিষ্ট নৌফাঁড়ির পুলিশ কর্মকর্তাদের বিষয়টি দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।