টাঙ্গাইলে কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে আসা ঈগল এক্সপ্রেসের বাসে ডাকাতি ও দলবদ্ধ ধর্ষণের মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে আরও দুই আসামি। বৃহস্পতিবার বিকেলে টাঙ্গাইলের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নওরিন করিম তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। আসামিরা হলো মাহমুদুল হাসান মুন্না ওরফে রতন হোসেন ও আব্দুল মান্নান। এ নিয়ে চার ধাপে মোট ১১ আসামি জবানবন্দি দিল। বাকি দুই আসামি জবানবন্দি দেয়নি।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক তানবীর আহমেদ বলেন, বৃহস্পতিবার রিমান্ডে থাকা চারজনকে আদালতে তোলা হয়। রতন ও আব্দুল মান্নান দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়। তবে হাসমত আলী ওরফে দীপু ও জীবন প্রামাণিক জবানবন্দি দেয়নি। পরে চারজনকেই কারাগারে পাঠানো হয়।
গত ২ আগস্ট রাতে কুষ্টিয়া থেকে ঈগল এক্সপ্রেসের একটি বাস নারায়ণগঞ্জে যাওয়ার পথে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের টাঙ্গাইলের নাটিয়াপাড়ায় ডাকাতের কবলে পড়ে। এ সময় যাত্রীদের হাত-মুখ বেঁধে সব লুটে নেওয়া হয়। শরীর তল্লাশির সময় এক তরুণী প্রতিবাদ করলে তাঁকে ডাকাতরা ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই বাসের এক যাত্রী মধুপুর থানায় অজ্ঞাতপরিচয় ১২-১৩ জনকে আসামি করে মামলা করেন।