এফডিসির সুইমিংপুল যেন ডাস্টবিন!

প্রকাশ: ২০ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২০ নভেম্বর ২০১৯      

অনিন্দ্য মামুন

অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে আছে এফডিসির একমাত্র সুইমিংপুল, যেখানে এক সময় কালজয়ী বহু সিনেমার দৃশ্যের শুটিং হয়েছে। কয়েক বছর আগেও সিনেমায় সুইমিং পুলের দৃশ্য থাকলে এটি ব্যবহার করা হতো। এখন সেটি যেন অতীত! শুটিং তো দূরের কথা কেউ এখন এটি দেখতেও আসেন না। 

বাংলা চলচ্চিত্রে সুইমিংপুলের দৃশ্য ধারণ করার জন্য তৎকালীন বিএফডিসি এমডি সাইফুল আলম সুইমিংপুলটি নির্মাণ করেন। আশির দশকে যারা সিনেমাতে কাজ করেছেন তাদের সঙ্গে এই সুইমিংপুলের অনেক স্মৃতিই জড়িয়ে আছে। তবে এর বর্তমান অবস্থা এতোটাই নাজুক কেউ বিশ্বাসই করবে না এটিই সেই সুইমিংপুল। প্রথম দর্শনে মনে হবে যেনো ময়লার ডাস্টবিন। 

সরেজমিনে এফডিসির ৩ ও ৪ নম্বর ফ্লোরের পেছনে গিয়ে দেখা যায় সুইমিংপুলের গেটে তালা ঝুলছে। বাহির থেকে দেখা যায় ভেতরে রয়েছে কয়েকটা আসবাবপত্র। আর সুইমিংপুলে জমে আছে ময়লা পানি। ময়লা-আবর্জনায় ভরে আছে পুরো পুল। অযত্নে-অবহেলায় সুইমিংপুলটি একেবারেই ধংসের পথে এখন।

এক সময়ের পরিচ্ছন্ন ও প্রয়োজনীয় এ সুইমিংপুলের এ বেহাল অবস্থা কেনো। জানতে যোগাযোগ করা হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএফডিসি) গণসংযোগ কর্মকর্তা হিমাদ্রি বড়ুয়ার সঙ্গে। সুইমিং পুলটি বেশিদিন রাখা হবে না বলেই জানান তিনি। সেখানে সুউচ্চ ভবন নির্মাণ হবে বলেই মন্তব্য এ কর্মকর্তার। যদিও বিষয়টি কয়েক বছর ধরেই বলা হচ্ছে এমন কথা। যার কোন বাস্তবায়ন দেখা যায়নি। 

হিমাদ্রি বড়ুয়া সমকাল অনলাইনকে বলেন, ‘এফডিসিতে এখন সুইমিংপুলের শুটিং হয়না। তাই এটা না রাখারই পরিকল্পণা এফডিসির। তাই সুইমিং পুল ও এর আশেপাশের ভবন ভেঙ্গে পুরোপুরি নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। এ জন্য সুইমিংপুল সংস্কারের কোন পরিকল্পনা নেই।

যদিও প্রায় ছয়মাস আগে যখন সুইমিংপুল নিয়ে কথা হয় ওই কর্মকর্তার সঙ্গে তখনও তিনি জানান ‘আগামী মাসেই’ সুইমিংপুল ভেঙ্গে ফেলা হবে। তবে সেই ‘আগামী মাস’ আর আসেনি। সুইমিংপুল ভাঙ্গাও হয়নি এবং সংস্কার করাও হয়নি।