নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ ১৩৬ পরিবারকে ২৭২ বান্ডিল ঢেউটিন ও নগদ ৮ লাখ ১৬ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে।

দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতায় বলাইশিমুল ও নওপাড়া ইউনিয়নে নগদ টাকা ও ঢেউটিন বিতরন করা হয়। নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আবদুর রহমান ক্ষতিগ্রস্থদের হাতে বৃহস্পতিবার বিকালে ঢেউটিন ও নগদ টাকা তুলে দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কেন্দুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নূরুল ইসলাম, ইউএনও মোঃ মইন উদ্দিন খন্দকার, পৌরসভার মেয়র মোঃ আসাদুল হক ভূঞা ও ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ প্রমুখ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান মৃধা জানান, ‘বলাইশিমুল ইউনিয়নের ভরাপাড়া, লস্করপুর, বালিজুড়া, নোয়াদিয়া গ্রামের ১১৪টি এবং নওপাড়া ইউনিয়নের পুরাবাড়ি গ্রামের ২২টি পরিবার সহ ১৩৬ পরিবারের প্রত্যেককে ২ বান্ডিল ঢেউটিনও নগদ ৬ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে।’

এর আগে ক্ষতিগ্রস্থদের হাতে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি লবন, ১ কেজি পেয়াজ, ২ কেজি আলু, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি চিড়া, আধা কেজি মুড়ি, ১ ডজন দিয়াশলাই, ১ প্যাকেট বিস্কুট ও মোমবাতি সহ শুকনো খাবার তুলে দিয়েছিলেন অসীম কুমার উকিল এমপি।

উল্লেখ্য, ২৭ মে দুপুরে কেন্দুয়া উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড়ে বলাইশিমুল ও নওপাড়া ইউনিয়নের শতাধিক ঘর বাড়ি লণ্ডভণ্ড করে দেয়। ঝড়ে আহত হন তাহেরা আক্তার সহ কয়েকজন নারী পুরুষ। আহত তাহেরা আক্তার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১২ জুন মারা গেছেন। তাকেও চিকিৎসার জন্য নগদ ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছিল। মৃত্যুর পর তার দাফন কাফনের জন্য আরও ১০ হাজার টাকা দেয়া হয় বলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

বিষয় : নেত্রকোণা কেন্দুয়া ঘূর্ণিঝড় ঢেউটিন নগদ

মন্তব্য করুন