গণপূর্তের সাবেক ২ শীর্ষ প্রকৌশলীর ব্যাংক হিসাব তলব

প্রকাশ: ২৪ অক্টোবর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

গণপূর্ত অধিদপ্তরের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম ও সাবেক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুল হাইয়ের ব্যাংক হিসাব তলব করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তাদের বাবা-মা, স্ত্রী, সন্তান বা স্বার্থসংশ্লিষ্ট কোনো নামে হিসাব পরিচালিত হলে সে তথ্যও জানাতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিট থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়। অর্থ পাচার ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের কারণে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) থেকে বুধবার যে ২২ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে, সেখানে এ দু'জনের নাম রয়েছে।

অবৈধ ক্যাসিনো ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান অভিযানের শুরুর দিকে গ্রেফতার জি কে শামীমের সঙ্গে এ দু'জনের সখ্য ছিল। তারা শামীমের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জি কে বিল্ডার্সের কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে নানাভাবে সহযোগিতা করেন। এ জন্য মোটা অংকের টাকা নেন বলে অভিযোগ রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে। বিদেশে অর্থ পাচার ও ক্যাসিনোর সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে গত বুধবার ২২ জনের দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেয় দুদক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে বলা হয়েছে, সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম ছাড়াও তার বাবা আব্দুল হামিদ, মা হিরনা খাতুন, স্ত্রী রাশিদা ইসলাম ও ছেলে খালেদ মইনুল ইসলামের নামে কোনো অ্যাকাউন্ট থাকলে আগামী রোববারের মধ্যে জানাতে হবে। সাবেক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুল হাই, তার বাবা সেলিম উদ্দীন, মা খোদেজা বেগম, স্ত্রী বনানী সুলতানা কনার নামে অ্যাকাউন্ট থাকলে জানাতে বলা হয়েছে। অ্যাকাউন্ট খোলার ফরম, কেওয়াইসি, শুরু থেকে হালনাগাদ বিবরণী পাঠাতে হবে।

এদিকে, প্রবাসী সেজে অনলাইনে বিভিন্ন নারীকে বিয়ের কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে সিলেটের মৌলভীবাজার থেকে সিআইডির হাতে গ্রেফতার হওয়া শাহ জাহাঙ্গীর আলীর অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তার বাবা মো. কলমদর আলী, মা ছালেহা বেগমের নামে কোনো হিসাব থাকলে সে তথ্যও জানাতে বলা হয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি সিলেটের ওসমানীনগরের ফকিরাবাদ এলাকায়। বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩ আগস্ট মৌলভীবাজারের সরকারবাজার এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।