অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যা

সঞ্চয়পত্রে নয়, সুদ কমেছে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের

প্রকাশ: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০     আপডেট: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকে মেয়াদি ও সাধারণ হিসাবে আমানতের সুদের হার কমানোর বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। সঞ্চয়পত্রের নয়, ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংক বিধি অনুযায়ী পরিচালিত সঞ্চয় স্কিমের সুদের হার কমিয়েছে সরকার।

রোববার বিকেলে এক বিজ্ঞপ্তিতে অর্থ মন্ত্রণালয় বলেছে, সঞ্চয়পত্রের সুদের হার সরকার কমায়নি। কমেছে ডাকঘরে যে সঞ্চয় কর্মসূচি (স্কিম) রয়েছে এবং সেই কর্মসূচির আওতায় মানুষ যে আমানত রাখছে তার সুদের হার। খবর ইউএনবির

এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ গত ১৩ ফেব্রুয়ারি একটি পরিপত্র জারি করেছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এর মাধ্যমে ডাকঘরের সঞ্চয় ব্যাংক ব্যাংকের সুদের হার সরকারি ব্যাংকের সুদের হারের সমপর্যায়ে নিয়ে আসা হয়েছে। কিন্তু সরকারের সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানো হয়নি। এটি আগে যা ছিল তাই আছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আইআরডির প্রজ্ঞাপন জারির পর বিভিন্ন গণমাধ্যমে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানো হয়েছে বলে যেসব প্রতিবেদন হয়েছে, তাতে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে এবং বিষয়টি স্পষ্ট করতেই এ বিজ্ঞপ্তি।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ডাকঘর থেকে যেমন সঞ্চয়পত্র কেনা যায়, তেমনি ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের আওতায়ও টাকা রাখা যায়। ডাকঘরে চারভাবে টাকা রাখা যায়। ডাকঘর থেকে জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তরে সঞ্চয়পত্র কেনা যায়, ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকে মেয়াদি হিসাব ও সাধারণ হিসাব খোলা যায়। আবার ডাক জীবন বীমাও করা যায়। এবার সুদের হার কমেছে ডাকঘরের সঞ্চয় স্কিমের মেয়াদি হিসাব ও সাধারণ হিসাবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সাধারণ হিসাবের ক্ষেত্রে সুদের হার ৭ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। আর তিন বছর মেয়াদি ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের সুদের হার হবে ৬ শতাংশ, যা এত দিন ১১ দশমিক ২৮ শতাংশ ছিল। মেয়াদ পূর্তির আগে ভাঙানোর ক্ষেত্রে এক বছরের জন্য সুদ পাওয়া যাবে ৫ শতাংশ, আগে যা ছিল ১০ দশমিক ২ শতাংশ। এ ছাড়া দুই বছরের ক্ষেত্রে তা হবে ৫ দশমিক ৫ শতাংশ, আগে যা ছিল ১০ দশমিক ৭ শতাংশ।