ব্যাংকারদের চলাচলে বাধা না দিতে গভর্নরের চিঠি

প্রকাশ: ০৪ এপ্রিল ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সাধারণ ছুটির কারণে অধিকাংশ অফিস বন্ধ থাকলেও খোলা আছে ব্যাংকসহ কিছু জরুরি সেবা। অফিসে যাওয়া বা অফিস শেষে বাসায় ফেরার পথে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর বাধার মুখে পড়ছেন অনেকে। ব্যাংকাররা চলাচলে যেন কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতায় না পড়েন সে বিষয়ে আইন-শৃংখলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানিয়ে জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবকে চিঠি দিয়েছেন গভর্নর ফজলে কবির। শনিবার এ চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবকে লেখা চিঠিতে বলা হয়েছে, করোনভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যেও সরকারি নির্দেশনা ও জনগণের আর্থিক চাহিদা মেটানো, বেতন-ভাতা পরিশোধ, অভ্যন্তরীণ ও অত্যাবশ্যকীয় বৈদেশিক বাণিজ্য চালু রাখতে সীমিত আকারে ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু রাখা হয়েছে। লেনদেন সুবিধা প্রদান, দেশব্যাপী জ্বালানি তেল ও সুলভমূল্যে খাদ্য বিতরণ সংক্রান্ত সরকারি কার্যক্রম অব্যাহত রাখার উদ্দেশে ব্যাংকিং লেনদেন বজায় রাখা তথা অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু রাখা প্রয়োজন। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত আগামী ৫ এপ্রিল থেকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে ৩টা পর্যন্ত দেশের সব ব্যাংক সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে। যথাযথ কর্মপরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে এসব ব্যাংকে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মস্থলে যাতায়াত ব্যবস্থা সুগম রাখা আবশ্যক।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির দিনগুলোতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকসহ দেশের বিভিন্ন তফসিলি ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিজ প্রতিষ্ঠানের পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে কর্মস্থল ও বাসস্থানে যাতায়াতের ক্ষেত্রে তারা এবং তাদের বহনারী বাহন যেন কোনোভাবে প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে না হয় সে লক্ষ্যে দায়িত্বরত আইন-শৃংখলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানানো হলো।