কভিড-১৯ এর কারণে সারা বিশ্ব একটি কঠিন সময় পার করছে। পুরো বিশ্বে করোনা ভাইরাস এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। তাই, প্রায় সকল কার্যক্রম বিশেষ করে ব্যবসাগুলো তীব্র সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে।

তাই, এসবিজনেস-এর সাথে ডন সামদানি, দ্যা বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড এবং বেটার স্টোরিজ মিলে “ফাউন্ডার্স এগেইন্সট কভিড-১৯” নামে প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে; যেখানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো অভ্যন্তরীণ ভাবে ন্যায্য চুক্তির মাধ্যমে পণ্য ও সেবা ক্রয় এবং বিক্রয় করতে পারবে। সেরা মাণ এবং সঠিক মূল্যের তুলনা করতে পারবে একই জায়গায় এবং সাথে থাকছে বিক্রয়োত্তর সেবা এবং ৩০ দিনের সার্ভিস ওয়্যারেন্টি। তাছাড়াও, যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক সহায়তা প্রয়োজন তাদের জন্য সর্বমোট ১ কোটি টাকা পর্যন্ত ক্রেডিটব্যালেন্স সুবিধা থাকছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের একটি লাইভে এই প্ল্যাটফর্মটির উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, দেশের স্টার্ট-আপ সেক্টরকে সহায়তা করতে বাংলাদেশ সরকার গুরুত্বের সাথে কাজ করে যাচ্ছে।

কভিড ১৯ এর কারণে দেশের ব্যবসাগুলো যেভাবে ব্যাপক হুমকির মধ্যে পরেছে সে সম্পর্কে সরকার সজাগ রয়েছে। কিভাবে প্রযুক্তি সেবার মান বাড়িয়ে এর সুফল ব্যবসায়ীদের মাঝে পৌঁছে দেওয়া যায় তা নিয়ে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমি খুবই আনন্দিত যে আমাদের দেশের স্টার্ট-আপ এবং তরুণ উদ্যোক্তারা শুধুমাত্র সরকারের আশায় বসে নেই। তারা নিজেদের যোগ্যতা, মেধা, দক্ষতা এবং সৃজনশীলতার মাধ্যমে এগিয়ে যাচ্ছে এবং একজন আরেকজনের পাশে দাঁড়িয়ে আরো শক্তিশালী হচ্ছে।

এই অনলাইন কনফারেন্সে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, আইসিটি মন্ত্রণালয়ের স্টার্টআপ বিষয়ক উপদেষ্টা টিনা এফ জাবীন, সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার ডন সামদানী, সেবা এক্সওয়াইজেড-এর সিইও আদনান ইমতিয়াজ হালিম ও প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সেবা এক্সওয়াইজেড এর স্ট্র‍্যাটেজিক হেড সামিউল কবীর।

টিনা এফ জাবীন বলেন, 'ফাউন্ডার্স এগেইন্সট কভিড ১৯' উদ্যোগটি খুবই সময়োপযোগী একটি পদক্ষেপ। এই সময়ে আমাদের উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়ানো দরকার যাতে তাদের ব্যবসা পরিচালনার খরচের বোঝা যতটা সম্ভব কমানো যায়। এধরণের প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে একটি স্টার্ট-আপ আরেকটি স্টার্ট-আপকে সাহায্য করতে পারবে। এছাড়া, এই প্ল্যাটফর্মে ক্রেডিট ফ্যাসিলিটির মাধ্যমে অনেক ব্যবসাকে সহযোগিতা  করা সম্ভব। দেশের স্টার্ট-আপগুলোকে বাঁচাতে টিনা এফ জাবীন সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, এই ধরনের উদ্যোগের মূল উদ্দেশ্যের সাথে একাত্মতা থাকার কারণেবেসিস তাদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত করেছে। আলমাস কবীর বলেন দেশের ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য কোভিড উনিশ পরবর্তী সমস্যা মোকাবিলার জন্য এই প্ল্যাটফর্ম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবে।

সেবা এক্সওয়াইজেড - এর সিইও আদনান ইমতিয়াজ হালিম বলেন, আমি মনে করি, করোনাভাইরাস যতোটুকু ঝুঁকি নিয়ে এসেছে আমাদের জন্য ঠিক ততটুকুই সুযোগ নিয়ে এসেছে। করোনাভাইরাস না আসলে টেকনোলজির উপর আমরা হয়তো এতো দ্রুত নির্ভরশীল হতাম না। প্রযুক্তির উপর এই নির্ভরশীলতা আমাদেরকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সহায়তা করবে। এস বিজনেস এর মাধ্যমে আমরা যেই প্ল্যাটফর্মটা তৈরি করেছি সেখানে ক্রেতা এবং সরবরাহকারী উভয়ের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি হবে।

এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে স্টার্ট-আপ এবং অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলো এইচ.আর.সল্যুশন, ওয়ার্ক-প্লেস সল্যুশন, অ্যাকাউন্টিং সল্যুশন, টপ আপ, ক্লিনিং এন্ড ডিসইনফেক্টিং, এবং অ্যাপ্লায়ান্স সার্ভিসিং অ্যান্ড রিপেয়ার সহ আরো অনেক সেবা গ্রহণ করতে পারবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি