গতবছর সফলতার সঙ্গে ‘আইডিয়া ইনোভেশন ১.০’ প্রোগ্রামটি আয়োজন করেছিলো ইন্টারঅ্যাকটিভ কেয়ারস। যেখানে ৫ লাখ অডিয়েন্স ও ২ হাজারেরও বেশি প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেছিলো। এর পাশাপাশি বিগত বছর ও চলমান করোনাকালীন সময়ে বিভিন্ন ধরনের আয়োজন করেছে তরুণ প্রজন্মের মেধা অন্বেষণে বিভিন্ন  প্রতিযোগিতা কিংবা তরুণ প্রজন্মকে তাদের ক্যারিয়ার নিয়ে উৎসাহিত করতে বিভিন্ন নামকরা প্রতিষ্ঠিত আইডলদের নিয়ে আয়োজন করেছে বিভিন্ন প্রোগ্রাম।

তবে খুশির খবর হলো- বিভিন্ন সফল আয়োজনের পর এবছর তরুণদের জন্য আবারও নিয়ে এলো তাদের ফ্ল্যাগশিপ ইভেন্ট ‘আইডিয়া ইনোভেশন ২.০’ যার এবারের থিম হলো ‘সাসটেইনেবল ইন্টারপ্রেনিওরশীপ’। অর্থাৎ SDG বিষয়ক বিজনেস আইডিয়া যা আমাদের সমাজ ও অর্থনীতিকে সাহায্য করবে। মূলত এই প্রতিযোগীতায় সেসব আইডিয়া খোঁজা হয়েছে যা সমাজ এবং পরিবেশের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে’ সামনে রেখে কাজ করবে যা বর্তমান সময়ে বিশ্বায়নে প্রভাব ফেলবে।

এই প্রতিযোগিতাটি ব্যবসায় উৎসাহী ও নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য নিঃসন্দেহে একটি বিশাল সুযোগ- আমাদের সমাজ ও অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে এমন বিজনেস আইডিয়া নিয়ে তাদের চিন্তা ও দক্ষতাগুলোকে সকলের সামনে তুলে ধরার। কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের চমৎকার সব আইডিয়া নিয়ে একক বা দলীয়ভাবে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে ।

এছাড়াও প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের জন্য থাকছে ১ লাখ টাকার প্রাইজমানি। তাছাড়াও তাদের কনটেস্ট গুলো নিয়ে পরবর্তীতে কাজ করার জন্য থাকবে কিছু সুযোগ যেমন প্রশিক্ষণের সুযোগ, মেন্টরিং সেশন এবং লাইভে চ্যাট,নামীদামি ইনভেস্টরদের সামনে নিজের আইডিয়া প্রেজেন্টেশনের সুযোগ, বিজনেস ডাটার জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার ও সংযোগ স্থাপনের সুযোগ।

বর্তমান প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে বিশ্বায়নের সুদূরপ্রসারি বিস্তৃতিকে মাথায় রেখে SDG সম্পর্কিত যে বিজনেস আইডিয়াগুলো বাছাই করা হয়েছে এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে কয়েকজন তরুণ উদ্যোক্তার হাত ধরে, সেগুলো বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতায় থাকবে। রেজিস্ট্রেশন চলমান থাকবে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত।

প্রতিযোগিতায় মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকবে জাগো এফএম ৯৪.৪, নিউজ মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকবে নিউ এইজ, প্রিন্ট মিডিয়া পার্টনার সমকাল, বিজনেস মিডিয়া পার্টনার দ্যা বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড, সম্প্রচারে থাকবে ৭১ টিভি, ইয়ুথ পার্টনার YSSE,  ইয়ুথ ম্যাগাজিন পার্টনার কিশোর আলো।

প্রতিযোগিতাটি সম্পর্কে Iইন্টারঅ্যাকটিভ কেয়ারস এর সিইও রেয়ার আল সামির বলেন, ‘তরুণ উদ্যোক্তাদের উদ্ভাবনী দক্ষতায় উৎসাহিত করার জন্য আইডিয়া ইনোভেশন প্রতিযোগিতাটি আয়োজন করা হচ্ছে। আমাদের দেশের অর্থনীতিকে আরো শক্তিশালী ও টেকসই করে গড়ে তুলতে এই আইডিয়াগুলো সহায়তা করতে পারে।’

ইন্টারঅ্যাকটিভ কেয়ারসের চেয়ারপার্সন জামিলা বুপাশা খুশবু বলেন, ‘এই মহামারি করোনার সময়ে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন। তাদের এই ক্ষতি থেকে উত্তরণের জন্য নতুন প্রজন্মের হাত ধরে উঠে আসা এই অনন্য সাধারণ আইডিয়াগুলোই হয়তো বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট পরিবর্তন করতে সক্ষম হবে।’

মন্তব্য করুন